রবিবার, ১৮ই আগস্ট, ২০১৯ ইং

তিন বছর পেরিয়ে কুবি সাইন্স ক্লাব

আজকের কুমিল্লা ডট কম :
সেপ্টেম্বর ৩, ২০১৮
news-image

 

শাহাদাত বিপ্লব, কুবি:

বিজ্ঞান শব্দের অর্থ হচ্ছে ‘বিশেষ জ্ঞান’। আমাদের দেশের অধিকাংশ শিক্ষার্থীদের কাছে বিজ্ঞান মানেই হলো একটি ভীতিকর শব্দ। মনস্তাত্ত্বিক এই ভীতি থেকেই শিক্ষার্থীরা বিজ্ঞান শেখায় অনেকটা অমনোযোগী হয়ে পড়েন। তবে বিজ্ঞান যে ভীতিকর বা অধরা কোন বিষয় নয় সেটি প্রমাণের লক্ষে নিরলসভাবে কাজ করে যাচ্ছে কুমিল্লা ইউনিভার্সিটি সাইন্স ক্লাব।

২০১৩ সালের শুরুর দিকে কুমিল্লা বিশ্ববিদ্যালয়ের কিছু বিজ্ঞানপ্রেমী শিক্ষার্থীদের হাত ধরে এ সংগঠনটির পথচলা শুরু হয়। প্রথম দিকে কিভাবে অনেক শিক্ষার্থীকে একসাথে করা যায়, কিভাবে বিভিন্ন বিজ্ঞানভিত্তিক প্রতিযোগিতায় অংশ নেয়া যায়, কিভাবে স্কুল কলেজের ছাত্রদের মাঝে বিজ্ঞানভীতি দূর করা যায় এ নিয়েই চলত আড্ডার আসর।

২০১৩ সালে কার্যক্রম শুরু করলেও কুমিল্লা ইউনিভার্সিটি সাইন্স ক্লাব আনুষ্ঠানিকভাবে যাত্রা শুরু করে ২০১৫ সালের ১ সেপ্টেম্বর। বিজ্ঞান আড্ডা, স্কুলে স্কুলে বিজ্ঞান জনপ্রিয়করণ, পাঠচক্র, চলচ্চিত্র প্রদর্শনীসহ বিজ্ঞান ভিত্তিক বিভিন্ন কার্যক্রমের মাধ্যমে সংগঠনটি তিন বছর পেরিয়ে চতুর্থ বর্ষে পদার্পণ করেছে। বিজ্ঞান’কে সহজভাবে শিক্ষার্থীদের কাছে পৌছে দিতে অবিরাম কাজ করে যাচ্ছে একদল বিজ্ঞানপ্রেমী।

যাত্রা শুরুর দুই বছর পর ২০১৭ সালের ১২ জুলাই সংগঠনটিকে স্বীকৃতি প্রদান করে বিশ্ববিদ্যালয় প্রশাসন। বিজ্ঞান মন্ত্রণালয়েও রয়েছে সংগঠনটির অন্তর্ভুক্তি। অনেক চড়াই উতরাই পেরিয়ে বর্তমানে কুমিল্লা ইউনিভার্সিটি সায়েন্স ক্লাবের সদস্য সংখ্যা প্রায় সাতশ’ এর কাছাকাছি।

বিশ্ববিদ্যালয়ের নিকটবর্তী বিভিন্ন স্থানে প্রায় সাতটি স্কুলে বিজ্ঞান জনপ্রিয়করণ অনুষ্ঠানের আয়োজন করেছে ক্লাবটি। নিজস্ব প্রোজেক্টরে দেশি বিদেশী মোট ছয়টি চলচ্চিত্র দেখনো হয়েছে যা ছিলো কুমিল্লা বিশ্ববিদ্যালয়ের সব শিক্ষার্থীর জন্য উন্মুক্ত।

এছাড়াও নাসা স্পেস এপস চ্যালেঞ্জ ২০১৭ তে কুবি সাইন্স ক্লাবের দুটি টিমের একটি ২য় এবং অন্যটি ১০ম স্থান অর্জন করে। একই বছর জাহাঙ্গীরনগর বিশ্ববিদ্যালয়ে সাইন্স ফেস্টিভাল এর পোস্টার প্রেজেন্টেশন এ তৃতীয় হওয়ার গৌরব অর্জন করে সংগঠনটি। এ বছর অনুসন্ধিৎসু চক্রের প্রযুক্তিগত সহায়তায় কুমিল্লা বিশ্ববিদ্যালয় ক্যাম্পাসে “আকাশ পর্যবেক্ষণ ক্যাম্প” কর্মসূচির আওতায় দূরবীক্ষণ যন্ত্র দিয়ে শিক্ষার্থীদের আকাশ পর্যবেক্ষণের সুযোগ করে দেয়া হয়।

চলতি বছরের ৮ ই আগষ্ট সংগঠনটির আয়োজনে কুমিল্লার বিভিন্ন স্কুল কলেজের প্রায় এক হাজারেরও বেশী ছাত্র-ছাত্রীর অংশগ্রহণে কুমিল্লা বিশ্ববদ্যালয় ক্যাম্পাসে অনুষ্ঠিত হয় প্রথম সাইন্স ফেস্টিভাল। ফেস্টিভালে মোট ৩টি লেভেলের ৯ টি ইভেন্টে অংশগ্রহণকারীদের মধ্য থেকে ৬৬ জনকে পুরষ্কৃত করা হয়। ফেস্টিভালে শিক্ষার্থীরা বিভিন্ন প্রজেক্ট প্রদর্শন করে। সেইসাথে মোড়ক উন্মোচন হয় ক্লাবের বাৎসরিক প্রকাশনা “বিজ্ঞানকথন” এর।

এসব বিজ্ঞানভিত্তিক কাজের পাশাপাশি বৃক্ষরোপণ এবং ক্যাম্পাস পরিষ্কারের মত সামাজিক কাজও করে আসছে সংগঠনের সদস্যরা।

সাইন্স ক্লাবের দপ্তর সম্পাদক ও প্রতিষ্ঠাকালীন সদস্য তন্ময় কুমার সরকার বলেন, “কুমিল্লা ইউনিভার্সিটি সায়েন্স ক্লাব, ত্যাগ আর ভালোবাসা দিয়ে গড়া একটা বাগান। কুমিল্লা বিশ্ববিদ্যালয়কে চিত্রিত করেছে নতুন রঙে, পরিচিত করিয়েছে নতুন আঙ্গিকে। বিজ্ঞানপ্রিয় ছাত্রদের মাঝে স্বপ্নের বীজ রোপিত হবে, দেশ পৌঁছাবে প্রযুক্তির শিখরে, এই আমাদের লক্ষ্য। সায়েন্স ক্লাবের প্রতিষ্ঠা ও অগ্রযাত্রায় যারা পাশে থেকেছেন এবং আছেন তাদের সবার প্রতি কৃতজ্ঞতা। বিশেষ করে নতুন সদস্যদের আগ্রহ ও শ্রম আমাদের শক্তি জুগিয়েছে।”

সংগঠনটির সভাপতি ওবায়দুল হব অবি’র ভাষ্যমতে, “বিজ্ঞান ও প্রযুক্তির যুগে দেশকে এগিয়ে নিতে এবং দেশে বিদেশে বিভিন্ন বিজ্ঞানভিত্তিক প্রতিযোগীতায় কুমিল্লা বিশ্ববিদ্যালয়কে উচ্চাসনে আসীন করার লক্ষ্যে বিজ্ঞানচর্চার পরিধিকে প্রসারিত করছে কুমিল্লা ইউনিভার্সিটি সায়েন্স ক্লাব।”

আর পড়তে পারেন