রবিবার, ১৮ই আগস্ট, ২০১৯ ইং

কুমিল্লা নগরীতে জমে উঠেছে বিউটি পার্লার ব্যবসা

আজকের কুমিল্লা ডট কম :
জুন ৮, ২০১৮
news-image

সেলিম সজীবঃ

ঈদ যত ঘনিয়ে আসছে, ততই ভিড় বাড়ছে কুমিল্লা নগরীর বিউটি পার্লারগুলোয়। নামিদামি পার্লারগুলোয় ছুটছেন রূপসচেতন তরুণীরা। ঈদের আগে ভিড় আরো বাড়বে বলে জানিয়েছেন পার্লার মালিকরা।

নানা ডিজাইনের চুল কাটা, কালার, ফেসিয়াল, রিবন্ডিংসহ বিভিন্ন সাজে সাজাতে ব্যস্ত পার্লার কর্মীরা।

মেহেদি রাঙানোর কাজ এখনো শুরু হয়নি। গৃহিণী থেকে শুরু করে তরুণী, কিশোরীদের অনেকেই অপক্ষো করতে দেখা যায় পার্লারের অভ্যর্থনা কক্ষে । কুমিল্লা নগরীর অভিজাত বিউটি পার্লারগুলো কুমিল্লায় শৌখিন নারী ও তরুণীদের মাঝে জনপ্রিয় হয়ে উঠেছে পার্লারটি। এ ব্যাপারে জানতে চাইলে বিউটিশিয়ান মোনা আজকের কুমিল্লাকে জানান, ‘ঈদের প্রচণ্ড ব্যস্ততার মধ্যেও আমরা সর্বোচ্চ মানের সেবা দিতে চেষ্টা করছি। ঈদের ক্লায়েন্টদের অতিরিক্ত ভিড়ের কারণে দীর্ঘ অপেক্ষা করতে হয়। বিষয়টি বিবেচনা করে আমরা এবার মিডনাইট সার্ভিস দেয়ার কথা ভাবছি। একই সঙ্গে নিরাপত্তার বিষয়টিও জোরদার করছি।’

এবারের ট্রেন্ড সম্পর্কে তিনি জানান, ‘পারসোনায় মেকআপের পাশাপাশি ফ্রুট ফেসিয়াল, অরেঞ্জ, অ্যালোভেরা, ভেজ-পিল, হোয়াইটেনিং ফেসিয়াল তরুণীদের বেশি পছন্দ। চলছে লংস্লাইড, লেজার, লেয়ার, মাল্টিপল লেয়ার, বেঙ্কস হেয়ার কাট। এবার ঈদের তালিকায় নতুন যুক্ত হয়েছে— ইমো, ভলিউম লেয়ার কাট, স্পেশাল ফেসিয়াল উইথ নেকস, বডি মাসাজ।’

নগরীর ছোট-বড় সব বিউটি পার্লারে এখন চলছে ঈদের ব্যস্ততা। মেয়েদের পার্লারের পাশাপাশি নগরীতে গড়ে উঠেছে বেশকিছু জেন্টস পার্লার। সেগুলোতেও ভিড় লক্ষণীয়। আলভিরাস জেন্টস, মিরর, সিজারস ওভার কম্ব দিচ্ছে ছেলেদের নানা সেবা। হেয়ার কাটিং, বিয়ার্ড শেভিং, বডি মাসাজ, স্পা, স্টিম বাথ, ফেসিয়াল ছাড়াও এসব পার্লারে সর্বাধুনিক সংযোজন ট্যাটু এবং শরীর, কান, আইভ্রুতে রিং ফোরানো।

নগরীর অলিগলিতে এখন অসংখ্য বিউটি পার্লার। প্রতিদিন গ্রাহক বাড়ছে। ফলে প্রতি বছর ঈদকে কেন্দ্র করে বিউটি পার্লারে ভিড় বাড়ছে। কুমিল্লায় এবারো কয়েক কোটি টাকা আয় করবেন বিউটি পার্লার ব্যবসায়ীরা।

বিউটিশিয়ান নুসরাত ইসলাম জানান, গত তিন বছর ধরে তিনি এ ব্যবসার সঙ্গে আছেন। প্রায় সব স্তরের নারীরা বিউটি পার্লারের সেবা নিচ্ছে। সৌন্দর্যচর্চার এ খাত ক্রমেই সম্প্রসারণ হবে বলে তিনি আশা প্রকাশ করেন।

আর পড়তে পারেন