মঙ্গলবার, ২০শে আগস্ট, ২০১৯ ইং

কুবিতে শিক্ষকদের প্রতিবাদের মুখে নিজ কার্যালয়ে প্রবেশ করতে পারেননি ভিসি

আজকের কুমিল্লা ডট কম :
আগস্ট ২০, ২০১৭
news-image

 

ইমতিয়াজ আহমেদ জিতুঃ

জাতীয় শোক দিবসে ক্লাস নেওয়ার অভিযোগে শাখা ছাত্রলীগের দাবির প্রেক্ষিতে কুমিল্লা বিশ্ববিদ্যালয়ের (কুবি) গণযোগাযোগ ও সাংবাদিকতা বিভাগের সভাপতি মাহবুবুল হক ভূঁইয়াকে প্রদানকৃত এক মাসের বাধ্যতামূলক ছুটি প্রত্যাহারের দাবি নিয়ে কুবি উপাচার্য অধ্যাপক ড. মো: আলী আশরাফ নিজ কার্যালয়ে প্রবেশ করতে দেননি কুবি শিক্ষক সমিতি।

রোববার (২০ আগষ্ট) বেলা সোয়া ১১ টায় নিজ কার্যালয়ে প্রবেশ করার সময় শিক্ষকদের বাধাঁর সম্মুখীন হন উপাচার্য। দুপুর দেড়টায় এ সংবাদ লেখার আগ পর্যন্ত উপাচার্য নিজ কার্যালয়ে প্রবেশ করতে পারেননি।

কুবি বঙ্গবন্ধু পরিষদের সভাপতি সাবেক প্রক্টর আইনুল হক জানান, ওই শিক্ষকের  এক মাসের বাধ্যতামূলক ছুটি প্রত্যাহারের দাবিতে আমরা অবস্থান নিয়েছি।

গত ১৫ আগস্ট জাতীয় শোক দিবসে ক্লাস নেয়ার অভিযোগে তুলে গণযোগাযোগ ও সাংবাদিকতা বিভাগের ভারপ্রাপ্ত বিভাগীয় প্রধান শিক্ষক মাহবুবুল হক ভূঁইয়ার বহিষ্কারের দাবিতে মঙ্গলবার উপাচার্যকে স্মারকলিপি প্রদান করে শাখা ছাত্রলীগ। পরে ওই শিক্ষকের বহিস্কারের দাবিতে প্রশাসনিক ও একাডেমিক ভবন গুলোতে তালা লাগিয়ে বিক্ষোভ করে। এতে দুই দিনে ১৯টি বিভাগে ক্লাস অনুষ্ঠিত হতে পারেনি। এতে বুধবার ১১টি ও বৃহস্পতিবার ৯ টি সেমিস্টারের চূড়ান্ত পরীক্ষা স্থগিত করা হয়। পরে ছাত্রলীগের দাবির মুখে ওই শিক্ষককে বাধ্যতামূলক এক মাসের ছুটিতে পাঠিয়েছে বিশ্ববিদ্যালয় প্রশাসন। সেই সাথে ঘটনা তদন্তে ৪ সদস্যের একটি তদন্ত কমিটি গঠন করা হয়।

এদিকে শিক্ষকের বিরুদ্ধে প্রশাসনের বাধ্যতামূলক ছুটির সিদ্ধান্ত জানার সাথে সাথে ছুটি প্রত্যাহারের দাবিতে আন্দোলন শুরু করে শিক্ষক সমিতি ও বঙ্গবন্ধু পরিষদের নেতৃবৃন্দ। ১৭ আগষ্ট সন্ধ্যা ৬টায় উপাচার্য অধ্যাপক ড. মো: আলী আশরাফ কার্যালয় থেকে বাসবভনে যাওয়ার জন্য জীপে উঠলে তার জীপ ঘিরে ধরেন শিক্ষক নেতারা। তারা মাহবুবুল হকের ছুটি প্রত্যাহারের দাবিতে উপাচার্যের জীপের সামনে ও পিছনে দাঁড়িয়ে থাকেন। এ সময় উপাচার্যপন্থী শিক্ষকদের সাথে শিক্ষক সমিতি ও বঙ্গবন্ধু পরিষদের নেতাদের সাথে বাকবিতন্ডা হয়। আজও একই দাবিতে উপাচার্যের পথ আটকে দেয় শিক্ষকরা।