শনিবার, ১৭ই আগস্ট, ২০১৯ ইং

যুবলীগ ক্যাডারদের ত্রাস সৃষ্টি বগুড়ায় পুলিশ পাহারায় পরীক্ষা দিচ্ছে এক ছাত্রী

আজকের কুমিল্লা ডট কম :
ফেব্রুয়ারি ২, ২০১৬

নিজস্ব প্রতিবেদক, বগুড়া: যুবলীগ ক্যাডারদের ত্রাস সৃষ্টি বগুড়ায় পুলিশ পাহারায় পরীক্ষা দিচ্ছে এক ছাত্রী বিয়ের প্রস্তাবে রাজি না হওয়ায় যুবলীগ ক্যাডারদের সশস্ত্র হামলার পর অবশেষে পুলিশ পাহারায় এসএসসি পরীক্ষায় অংশ নিচ্ছে এক স্কুলছাত্রী। ওই পরীক্ষার্থীর বাড়ি থেকে পরীক্ষাকেন্দ্রে যাওয়ার পথে সার্বক্ষণিক পুলিশি টহলের ব্যবস্থা করা হয়েছে। এ ছাড়া বাড়ির আশপাশে নিরাপত্তাব্যবস্থা গ্রহণ করা হয়েছে। এ ঘটনায় মামলার পর পুলিশ চারজনকে গ্রেপ্তার করেছে। সদর থানার ওসি আবুল বাশার এর সত্যতা নিশ্চিত করেন।1454350599
সদর উপজেলার গোকুল মধ্যপাড়া এলাকার যুবলীগকর্মী আতিকুর রহমান ওরফে আকুল ও রাব্বি মিয়া একই এলাকার ট্রাকচালক জিন্নাহ মিয়ার এসএসসি পরীক্ষার্থী মেয়ে এবং ভাগ্নি পাশের বাড়ির মুদি দোকানি বাবলু মিয়ার সপ্তম শ্রেণিতে পড়ুয়া মেয়ের প্রতি কুদৃষ্টি পড়ে। জিন্নাহর মেয়েকে জোর করে বিয়ে করতে চায় আকুল, আর বাবলুর মেয়েকে বিয়ে করতে চায় রাব্বি।
বিয়ে দিতে অস্বীকৃতি জানালে আকুল ও রাব্বি গত ৯ জানুয়ারি দলবল নিয়ে অস্ত্রের মুখে দুই কিশোরীকে তুলে আনতে যায়। পরদিন আকুল ও রাব্বির নেতৃত্বে ১৫-২০ জনের একটি দল তাদের বাড়িতে হামলা চালিয়ে ঘর ভাঙচুর, খড়ের গাদায় আগুন জ্বালানো ছাড়াও গোয়াল থেকে গরু বের করে নিয়ে যায়। পাশাপাশি বিয়ে না দিলে সপরিবারে পুড়িয়ে মারার হুমকি দিয়ে যায়। তাদের হাত থেকে বাঁচতে এক পরিবার তিন সপ্তাহ আগে বাড়িঘর ছেড়ে আত্মগোপন করে। অন্য পরিবার সন্ত্রাসীদের ভয়ে স্কুলপড়–য়া ছেলেমেয়েদের পাঠিয়েছে বহু দূরে নিকটাত্মীয়ের বাড়িতে।
গত রোববার সাংবাদিকদের মাধ্যমে বগুড়ার পুলিশ সুপার ঘটনাটি জানতে পেরে আত্মগোপনে থাকা এসএসসি পরিক্ষার্থী ছাড়াও অন্যদের বাড়িতে ফিরিয়ে আনার উদ্যোগ নেন। তিনি রাতেই ঘটনাস্থল পরিদর্শন করেন।
ওই রাতেই ট্রাকচালক জিন্নাহর ভাই আব্দুস সালাম বাদী হয়ে যুবলীগকর্মী আকুল ও রাব্বিসহ আটজনের বিরুদ্ধে সদর থানায় মামলা করেন। মামলার পরপরই পুলিশ এলাকায় অভিযান চালিয়ে রনি, সনি, জয় ও আকুলের বড় বোন সোহাগীকে গ্রেপ্তার করে।
এদিকে জিন্নাহর মেয়ে কড়া পুলিশি নিরাপত্তায় গোকুল তছলিম উদ্দিন উচ্চ বিদ্যালয়কেন্দ্রে পরীক্ষা দিচ্ছে।
আমাদের সময়