বুধবার, ২৫শে নভেম্বর, ২০২০ খ্রিস্টাব্দ

হাসপাতালের মর্গে মৃত নারীদেরকে ধর্ষণ

আজকের কুমিল্লা ডট কম :
নভেম্বর ২০, ২০২০
news-image

 

ডেস্ক রিপোর্টঃ

মামার সাথে সহযোগী হিসেবে সোহরাওয়ার্দী হাসপাতালের মর্গে কাজ করতেন মুন্না ভগত (২০)। কিন্তু মর্গে থাকা মৃত নারীদের ধর্ষণ করার অপরাধে তাকে গ্রেফতার করেছে পুলিশের অপরাধ তদন্ত বিভাগ-সিআইডি।

সিআইডি সূত্রে জানা যায়, বিভিন্ন স্থান থেকে যেসব মরদেহ ময়নাতদন্তের জন্য মর্গে নেওয়া হতো, সেসব মরদেহের মধ্য থেকে মৃত নারীদের ধর্ষণ করতো মুন্না।

সিআইডির অতিরিক্ত উপ-মহাপরিদর্শক সৈয়দ রেজাউল হায়দার জানান, ‘ঘটনাটি খুবই ন্যাক্কারজনক। আজ শুক্রবার (২০ নভেম্বর) দুপুরের দিকে সংবাদ সম্মেলন করে এ বিষয়ে বিস্তারিত জানানো হবে।’

সংশ্লিষ্ট সূত্রে জানা যায়, গ্রেফতার হওয়া মুন্না ভগত সোহরাওয়ার্দী হাসপাতালের মর্গে ডোম জতন কুমার লালের সহযোগী হিসেবে কাজ করত। দুই-তিন বছর ধরে তিনি মর্গে থাকা মৃত নারীদের ধর্ষণ করে আসছিল। সম্প্রতি এরকম একটি অভিযোগ পেয়ে মুন্নার বিষয়ে অনুসন্ধান শুরু করে সিআইডি। প্রাথমিক অনুসন্ধানে ঘটনার সত্যতা পাওয়ায় মুন্নাকে গ্রেফতার করা হয়। প্রাথমিক জিজ্ঞাসাবাদে মুন্না মৃত নারীদের ধর্ষণের কথা স্বীকার করেছে।

সোহরাওয়ার্দী হাসপাতালের মর্গে দায়িত্বরত ডোম ও মুন্নার মামা জতন কুমার লাল বলেন, মুন্না গত ২/৩ বছর ধরে তার সহযোগী হিসেবে মর্গে কাজ করত। তার বাবার নাম দুলাল ভগত। গ্রামের বাড়ি রাজবাড়ীর গোয়ালন্দ বাজারে। সে আরও দুই/তিন জনের সাথে মর্গের পাশে একটি কক্ষেই রাতে থাকত।

তিনি আরও জানান, মুন্নাকে হঠাৎ খুঁজে পাওয়া যাচ্ছিল না। তার মোবাইল নম্বরও বন্ধ। একারণে তারা বৃহস্পতিবার সন্ধ্যায় রাজধানীর শেরেবাংলা নগর থানায় একটি সাধারণ ডায়েরি (নম্বর- ১২৩৬) দায়ের করেছেন।

আর পড়তে পারেন