বুধবার, ১২ আগস্ট, ২০২০

সুপার সাইক্লোন আম্পান আসছে : কুমিল্লায় ৬ নম্বর বিপদ সঙ্কেত

আজকের কুমিল্লা ডট কম :
মে ১৯, ২০২০
news-image

 

ডেস্ক রিপোর্ট:
সুপার সাইক্লোন আম্পান ভারতের উড়িস্যা থেকে দ্রুত গতিতে ধেয়ে আসছে। দেশের বিভিন্ন জেলার মত  কুমিল্লায় ৬ নম্বর বিপদ সঙ্কেত দেখানো হয়েছে। সুপার সাইক্লোনে রূপ নেয়া ঘূর্ণিঝড় আম্পানের প্রভাবে কুমিল্লায় ভারী থেকে অতি ভারী বৃষ্টি ও দমকা থেকে ঝড়ো হাওয়া বয়ে যেতে পারে। সেই সাথে বাতাসের গতিবেগ ঘন্টায় ১৫০ থেকে ১৬০ কিলোমিটার ছাড়িয়ে যাবে।

বিশিষ্ট আবহাওয়াবিদ আবদুল মান্নান জানান, কুমিল্লাও ৬ নম্বর বিপদ সংকেতের আওতায় রয়েছে। চাঁদপুর অদূরবর্তী দ্বীপ ও চরগুলো ৭ নম্বর বিপদ সংকেতের আওতায় থাকবে। বুধবার এই বিপদ সংকেত পরিবর্তিত হলে কুমিল্লায় ৮ নম্বর হতে পারে।

আম্পানের গতি-প্রকৃতি তুলে ধরে আবহওয়াবিদ আব্দুল মান্নান বলেন, “সাইক্লোনটি এখন ঘণ্টায় ১৮-২০ কিলোমিটার বেগে উপকূলের দিকে এগোচ্ছে। বুধবার দুপুরের পর থেকে বাংলাদেশ উপকূলে প্রভাব শুরু হবে। সন্ধ্যা থেকে রাতভর ঝড়ের প্রভাব থাকবে উপকূল জুড়ে।”
সুপার সাইক্লোনে রূপ নেয়া ঘূর্ণিঝড় আম্পানের প্রভাবে কুমিল্লায় ভারী থেকে অতি ভারী বৃষ্টি ও দমকা থেকে ঝড়ো হাওয়া বয়ে যেতে পারে। সেই সাথে বাতাসের গতিবেগ ঘন্টায় ১৫০ থেকে ১৬০ কিলোমিটার ছাড়িয়ে যাবে। দুর্যোগকালীন এ সময়ে কুমিল্লায় ৬ নম্বর সতর্কতা সঙ্কেত দেখানো হয়েছে।

এ বিষয়ে যোগাযোগ করা হলে কুমিল্লা আবহাওয়া অফিসের কর্মকর্তা মো. ইসমাইল ভূইয়া বলেন, ঘূর্ণিঝড় আম্পানের প্রভাবে কুমিল্লায় ভারী থেকে অতি ভারী বৃষ্টি ও বজ্র বৃষ্টি হতে পারে। ১৫০ থেকে ১৬০ কিলোমিটার সেই দমকা থেকে ঝড়ো হাওয়া বয়ে যেতে পারে।

ঘূর্ণিঝড়ের প্রভাবে সাগর উত্তাল  থাকায় আগের মতই মোংলা ও পায়রা সমুদ্রবন্দরকে ৭ নম্বর এবং চট্টগ্রাম ও কক্সবাজার সমুদ্রবন্দরকে ৬ নম্বর বিপদ সংকেত দেখাতে বলেছে আবহাওয়া অধিদপ্তর।
উপকূলীয় জেলা সাতক্ষীরা, খুলনা, বাগেরহাট, ঝালকাঠি, পিরোজপুর, বরগুনা, পটুয়াখালী, ভোলা, বরিশাল, লক্ষ্মীপুর, চাঁদপুর অদূরবর্তী দ্বীপ ও চরগুলো ৭ নম্বর বিপদ সংকেতের আওতায় থাকবে।
আর উপকূলীয় জেলা নোয়াখালী, ফেনী, চট্টগ্রাম ও কক্সবাজার এবং অদূরবর্তী দ্বীপ ও চরগুলো ৬ নম্বর বিপদ সংকেতের আওতায় থাকবে।

এদিকে মঙ্গলবার দুপুরে আবহাওয়া অধিদপ্তরের শেষ বিজ্ঞপ্তিতে বলা হয়, সুপার সাইক্লোন আম্পান  ঘূর্ণিঝড়টি  বুধবার সন্ধ্যার মধ্যে খুলনা ও চট্টগ্রামের মধ্যবর্তী অঞ্চল দিয়ে বাংলাদেশের উপকূল অতিক্রম করতে পারে।

আর পড়তে পারেন