সোমবার, ৪ আগস্ট, ২০২০

সিজেডএস-৯৮ ব্যাচের বন্ধুদের উদ্যোগে অনলাইন চিত্রাঙ্কন প্রতিযোগিতার ব্যতিক্রমধর্মী পুরষ্কার বিতরণ

আজকের কুমিল্লা ডট কম :
জুলাই ৭, ২০২০
news-image

 

স্টাফ রিপোর্টার:

কুমিল্লা জিলা স্কুল-৯৮ ব্যাচের বন্ধুদের  (CZS’98 BATCHFRIENDS ) (কুমিল্লা জিলা স্কুল-৯৮ ব্যাচের বন্ধুরা) ফেইসবুক পেইজের উদ্যোগে করোনার মহামারীতে বাচ্চাদের নিয়ে আয়োজিত  জাতীয় মানের অনলাইন চিত্রাঙ্কন প্রতিযোগিতা-২০২০ এর  ব্যতিক্রমধর্মী পুরষ্কার বিতরণ অনুষ্ঠিত হয়েছে।

সোমবার ( ৬  জুলাই) এ  অনলাইন চিত্রাঙ্কন প্রতিযোগিতার পুরষ্কার বিতরণ অনুষ্ঠিত হয়।

এই পুরষ্কার বিতরণীর প্রধান অথিতি হিসেবে  CZS98 BATCH FRIENDS  নির্বাচন করেছে শিশু শিল্পীদের মা ও বাবাকে। শিশু শিল্পীরা এই পুরষ্কার, সার্টিফিকেটসহ উপহারগুলো গ্রহণ করেছে তাদের বাবা-মা’ র হাত থেকে। অংশগ্রহণকারী সকল প্রতিযোগীকে সার্টিফিকেট ও উপহার  প্রদান করা হয়।

CZS98 BATCH FRIENDS  এর এডমিন ও মডারেটরসহ সকল বন্ধুদের উদ্যোগে এটি অনুষ্ঠিত হয়। এ প্রতিযোগিতা আয়োজনে গুরুত্বপূর্ণ ভূমিকা রাখেন রুবেল খান, রাকিব আহাম্মেদ, শাকিল কবির, কিউ এইচ এম ওয়াহিদুজ্জামান রাজন, চৌধুরী তারেক, শাফায়েত জেসন, ছোটন শাফায়েত, রাজিবুর রহমান হান্নান প্রমুখ।

গত ১৪ই জুন থেকে ১৮ ই জুন পর্যন্ত এ প্রতিযোগিতার আয়োজন করে ।

এ প্রতিযোগিতার উদ্যোক্তোরা জানান, এই বিশ্বব্যাপী করোনার মহামারীর মধ্যে আমাদের বাচ্চারা ঘর বসে থাকতে থাকতে তাদের জীবন হয়ে উঠে এক বিভিষীকাময়। ঘর থেকে বের হয়ে খেলাধূলা ও কোথাও ঘুরতে বেড়াতে পারছেনা, তাদের জীবন হয়ে উঠেছে একঘেয়েমী। তাই সৃজনশীল উদীয়মান এই শিশুদের কথা চিন্তা করেই এই ওনলাইন ভিত্তিক চিত্রাঙ্কন প্রতিযোগিতার করার উদ্যোগ নেয়া হয়।

এ ই প্রতিযোগিতায় জুরি বোর্ডে (বিচারক প্যানেলে) ছিলেন ঢাকা বিশ্ববিদ্যালয়ের চারুকলা অনুষদের অংকন ও চিত্রায়ণ বিভাগের বিভাগীয় চেয়ারম্যান ও অধ্যাপক বাংলাদেশের বিশিষ্ট চিত্রশিল্পী শিশির ভট্টাচার্য্য, ঢাকা বিশ্ববিদ্যালয়ের চারুকলা অনুষদের মৃৎশিল্প বিভাগের বিভাগীয় চেয়ারম্যান ও সহযোগী অধ্যাপক বিশিষ্ট মৃৎশিল্পী দেবাশীষ পাল ও ঢাকা বিশ্ববিদ্যালয়ের চারুকলা অনুষদের অংকন ও চিত্রায়ণ বিভাগের সহকারী অধ্যাপক চিত্রশিল্পী কামাল উদ্দিন ।

শিশুদের এই চিত্রাঙ্কন প্রতিযোগীতায় অংশগ্রহণ করে মোট ৪৩ জন প্রতিযোগী। প্রতিটি শিশু শিল্পীই তাদের নিজস্ব চিন্তা চেতনার বহিঃপ্রকাশ ঘটিয়েছে তাদের চিত্রকর্মে। এই ৪৩ জন শিশু শিল্পীদের চিত্রকর্মের মধ্যে মোট তিন বিভাগ থেকে ১০ জন শিশু শিল্পীকে এবং এই ১০ শিশু শিল্পীর মধ্যে একজনকে “গ্র্যান্ড এ্যাওয়ার্ড” পদবীতে নির্বাচন করেন বাংলাদেশের জাতীয় চিত্রশিল্পীরা।

প্রতিযোগীতায় বিজয়ীদের নাম:

গ্র্যান্ড এ্যাওয়ার্ড অর্জন করেছেন খ বিভাগ থেকে হাফসা হোসাইন।

(ক – বিভাগ) বিষয় – “উন্মুক্ত” :
এ বিভাগে যুগ্মভাবে প্রথম স্থান অধিকার করেছেন ওয়াসী নাজমুল ভূঁইয়া ফিহা ও আইফনিন লায়লা শিজা । দ্বিতীয় স্থান অধিকার করেছেন মিফতাহুর রহমান ও তৃতীয় হয়েছেন মোঃ আরিয়ান হায়দার ।

(খ- বিভাগ) গ্রাম বাংলা ও প্রকৃতি:

এ বিভাগে প্রথম হয়েছেন হাফসা হোসাইন, দ্বিতীয় হয়েছেন মায়িদা আলম খান ও তৃতীয় হয়েছেন নাবীহা তাহসীন ।

(গ -বিভাগ) বিষয় – করোনা ও তার পরিস্থিতি:
এ বিভাগে প্রথম হয়েছেন শাফিনাজ শাহরিন মানিতা , দ্বিতীয় হয়েছেন আনিসা তাসনিম ইমাম ও
তৃতীয় হয়েছেন জান্নাতুল সুমাইয়া নাহার মৌ ।

প্রতিযোগী ৪৩ জন হলেন:
(২ থেকে ৬ বছর বয়সী ) ওয়াসী নাজমুল ভূঁইয়া ফিহা, তাহমিদ হাসান ইমাম, আনুশি জে তাজওয়ার, মোঃ নুজাইফ হায়দার মানাফ, মোঃ আরিয়ান হায়দার, মেহরিশ নাজাফ, মিফতাহুর রহমান, মোঃ নুরাইজ হায়দার মিশরাক, মোঃ জবাদে আহমেদ, মোঃ সাজ্জাদুল আরিফিন, আমিনা বিনত আশাদ আইফনিন লায়লা শিজা।

(৭ থেকে ১০ বছর বয়সী ) ওয়াফী বিনতে নাজমুল, আবু হুরাইরাহ, ওয়াজীহা ফোরকান জিহা, মোঃ রেজওয়ানুল হক সাইফ, উন্মে খায়রুল আদিবা, আব্দুল্লাহ আল ওয়াসির, জান্নাতুল হাফসা নাহার মুন, নাজিয়া খন্দকার রাহা, তাহিরা খন্দকার হাফসা, তাজ আল দ্বীন চৌধুরী, জান্নাতুল সুমাইয়া নাহার মৌ, শারাফ হাসান আদিয়ান, রশ্মিয়া চৌধুরী মোঃ জাওয়াদ আজমাঈন, জান্নাতুল তালহা নাহার মাইমুনা, আরিয়া মুসসারাত, মাইদা আলম খান, বেদত্রয়ী ত্রিধারা দেবনাথ, নুসাইবা নাইম, হাফসা হোসাইন, নাবীহা তাহসীন, ফারিসা সিদ্দিকা, ফৌজিয়া আক্তার ।

(১১থেকে ১৫ বছর বয়সী ) শাফিনাজ শাহরিন মানিতা, জুলিয়া আফরিন, রওজাতুন মিম নওমি, জান্নাতুল সুমাইয়া নাহার মৌ, আনিসা তাসনিম ইমাম, ফারসিদ রহমান, খালিদ হোসাইন, হাসিবুল মুনতাসির।

প্রতিযোগিতায় অংশগ্রহণ করা শিশু শিল্পীদের আঁকা পেইন্টিং দেখে বিচারকদের জুরি বোর্ডের দেশবরণ্য চিত্রশিল্পী শিশির ভট্টাচার্য্য, মৃৎশিল্পী দেবাশীষ পাল ও চিত্রশিল্পী কামাল উদ্দিন অত্যন্ত আনন্দিত ও পুলকিত।

আর পড়তে পারেন