মঙ্গলবার, ১৯শে নভেম্বর, ২০১৯ ইং

যুবলীগ চালাতে মাসে ৫০ লক্ষ টাকা আসতো ক্যাসিনো থেকে !

আজকের কুমিল্লা ডট কম :
সেপ্টেম্বর ২৯, ২০১৯
news-image

 

ডেস্ক রিপোর্টঃ

যুবলীগের ঢাকা মহানগর দক্ষিণের সাংগঠনিক সম্পাদক খালেদ মাহমুদ ভূঁইয়াকে দ্বিতীয় দফায় রিমান্ডে জিজ্ঞাসাবাদ করা হয়েছে। জিজ্ঞাসাবাদে খালেদ বলেছেন যে, রাজনৈতিক এবং সাংগঠনিক ব্যয় নির্বাহের জন্যই ক্যাসিনো আনা হয়েছিল। এই ক্যাসিনোর টাকাতেই ঢাকা মহানগর দক্ষিণের বিভিন্ন সাংগঠনিক তৎপরতা চলতো।

রিমান্ডে খালেদ আরও জানিয়েছেন, যুবলীগ দক্ষিণ ছিল সবচেয়ে শক্তিশালী সংগঠন। ঢাকা শহরে শুধু যুবলীগের নয়, আওয়ামী লীগেরও জনসভায় লোক সরবরাহের ক্ষেত্রে যুবলীগ দক্ষিণকেই ব্যবহার করা হতো। দক্ষিণের সংগঠনকে চাঙ্গা রাখা, সাংগঠনিক তৎপরতা চালানো এবং জনসভায় লোক আনার ক্ষেত্রে প্রচুর টাকা খরচ হতো। এই ব্যয় নির্বাহের জন্যই তারা ক্যাসিনো শুরু করেছিলেন।

খালেদ দাবি করেছেন যে, এই ক্যাসিনোর টাকার ভাগ শুধু তিনি বা সম্রাট নিতেন না। এই টাকার ভাগ অন্যান্যদেরও দেওয়া হতো। আওয়ামী লীগের বিভিন্ন নেতারাও এই ভাগ পেতেন। মূলত এই টাকার বড় অংশ ব্যবহার করা হতো সাংগঠনিক তৎপরতায়।

ক্যাসিনোর টাকা সাংগঠনিক কাজে ব্যবহার করা হতো এটা যুবলীগের চেয়ারম্যান জানেন কিনা এমন প্রশ্নের জবাবে যুবলীগ চেয়ারম্যান ওমর ফারুক চৌধুরী বলেন যে, না। তিনি এ বিষয়ে কিছুই জানতেন না।

যুবলীগের চেয়ারম্যান বলেছেন, ক্যাসিনো থেকে না কোথা থেকে টাকা উপার্জন হচ্ছে, সেটা বিষয় নয়, তবে যুবলীগ চালানোর ক্ষেত্রে কেন্দ্রীয় নেতৃবৃন্দ সম্রাটের ওপর নির্ভরশীল ছিল।

মাসে কত টাকা খরচ হতো রিমান্ডে এমন প্রশ্নের জবাবে খালেদ বলেছেন, প্রায় ৫০ লাখ টাকা দল চালাতে মাসে খরচ হতো। আর এই খরচটা সম্রাটই বহন করতো।

সূত্রঃ বাংলা ইনসাইডার

আর পড়তে পারেন