রবিবার, ১৫ই ডিসেম্বর, ২০১৯ ইং

ব্রাহ্মণপাড়ায় অবৈধ ড্রেজার মেশিন দিয়ে মাটি উত্তোলন, ১ লক্ষ ১০ হাজার টাকা জরিমানা

আজকের কুমিল্লা ডট কম :
অক্টোবর ১৮, ২০১৯
news-image

আনোয়ারুল ইসলাম ঃ
কুমিল্লার ব্রাহ্মণপাড়া উপজেলার শশীদল ইউনিয়নের সাজঘর উত্তর পাড়া গ্রামে চান্দলা-মন্দবাগ সড়ক সংলগ্ন সরকারি খালের পাশে দীর্ঘদিন যাবত অবৈধ খনন যন্ত্র (ড্রেজার মেশিন) দিয়ে মাটি উত্তোলন করায় পরিবেশ ও সরকারি খাল হুমকির মুখে পড়েছে।

বৃহস্পতিবার (১৭ অক্টোবর) দুপুরে ভ্রাম্যমান আদালত জমির মালিককে এক লক্ষ টাকা এবং খনন যন্ত্রের মালিককে ১০ হাজার টাকা জরিমানা করেছেন ভ্রাম্যমান আদালত। ভ্রাম্যমান আদালতের অভিযানটি পরিচালনা করেছেন নির্বাহী ম্যাজিষ্ট্রেট ও ব্রা‏হ্মণপাড়া উপজেলা সহকারী কমিশনার (ভূমি) মোহাম্মদ জাফর সাদিক চৌধুরী।

ভ্রাম্যমান আদালত সূত্রে জানা গেছে, ব্রা‏হ্মণপাড়া উপজেলা সাজঘর উত্তর পাড়া গ্রামের মাটি ব্যবসায়ী মো. মানিক মিয়া দীর্ঘদিন যাবত চান্দলা টানাব্রীজ-মন্দবাগ সড়কের সংলগ্ন সরকারি খাল ঘেষে সাজঘর উত্তর পাড়া গ্রামে মালিকানাধীন জমির বিশাল আকৃতির একটি গর্ত খুড়ে মাটি উত্তলন করে বিভিন্ন জায়গায় বিক্রি করে আসছে। এ অবস্থায় ওই জায়গার আসে পাশের জমি ও পাশ ঘেষে যাওয়া সরকারি খাল হুমকির মুখে পড়েছে।

স্থানীয় কয়েকজন ব্যক্তি বলেন, মাটি ব্যবসায়ী মানিক মিয়া এলাকাবাসীর কথা তোয়াক্কা না করে চন্দলা-মন্দবাগ খাল ঘেষে জমিতে অবৈধ ড্রেজার মেশিন লাগিয়ে প্রায় ৩০/৩৫ ফুটের মত গভীর করে বিভিন্ন জায়গায় মাটি বিক্রয় করে আসছেন। তার এই বিশাল আকারে গর্ত খুড়ে মাটি বিক্রয় ও জমির গভীরতার কারণে আমাদের আশেপাশের জমিগুলো জন্য এখন হুমকি হয়ে দাড়িয়েছে। এছাড়া সরকারি খাল ঘেষে চন্দলা-মন্দবাগ সড়কটিও হুমকিতে পড়েছে।

খবর পেয়ে নির্বাহী ম্যাজিষ্ট্রেট ও ব্রা‏হ্মণপাড়া উপজেলার সহকারি কমিশনার (ভূমি) মোহাম্মদ. জাফর সাদিক চৌধুরী বৃহস্পতিবার দুপুরে ঘটনাস্থলে পৌছে সত্যতা পান। ঘটনাস্থলেই উপস্থিত হয় জমির মালিক মো. মানিক মিয়া এবং খনন যন্ত্রের মালিক মো. জাহের মিয়া। এসময় ভ্রাম্যমান আদালত বসান নির্বাহী ম্যাজিষ্ট্রেট। ওই সময় জমি ও খনন যন্ত্রের মালিক তাদের দোষ স্বীকার করেছেন।

ভ্রাম্যমান আদালত বালু মহাল ও মাটি ব্যবস্থাপনা আইনে জমির মালিক মানিক মিয়াকে এক লক্ষ টাকা এবং খনন যন্ত্রের মালিক জাহের মিয়াকে ১০ হাজার টাকা জরিমানা করেছেন। একই সাথে অবৈধ খনন যন্ত্র তুলে নেয়।

এ ব্যাপারে নির্বাহী ম্যাজিষ্ট্রেট ও ব্রা‏হ্মণপাড়া উপজেলা সহকারী কমিশনার (ভূমি) জাফর সাদিক চৌধুরী বলেন, অবৈধ খনন যন্ত্র দিয়ে মাটি কাটার বিষয়ে জমির মালিক মানিক মিয়া ও খনন যন্ত্রের মালিক জাহের মিয়া তাদের দোষ স্বীকার করেছেন। তাদেরকে বালু মহাল ও মাটি ব্যবস্থাপনা আইনে জমির মালিককে এক লক্ষ টাকা এবং খনন যন্ত্রের মালিককে ১০ হাজার টাকা জরিমানা করা হয়েছে।

আর পড়তে পারেন