সোমবার, ১৭ই নভেম্বর, ২০১৯ ইং

বাংলাদেশসহ ১৬১ দেশের মানুষের দক্ষতা উন্নয়ন ও সামর্থ্য  বৃদ্ধিই  আইটেক কর্মসূচীর প্রধান লক্ষ্য-ভারতীয় হাই কমিশনার

আজকের কুমিল্লা ডট কম :
সেপ্টেম্বর ২০, ২০১৯
news-image

স্টাফ রিপোর্টারঃ

ঢাকায় নিযুক্ত ভারতীয় হাইকমিশনার রীভা গাঙ্গুলী দাশ বলেন,বাংলাদেশসহ এশিয়া, আফ্রিকা, পূর্ব ইউরোপ, ল্যাটিন আমেরিকা, ক্যারিবিয়ান ও প্রশান্ত মহাসাগর এলাকার ছোট দ্বীপগুলোসহ ১৬১ দেশজুড়ে বন্ধুত্বের সেতু গড়ে তুলতে ভারতের আইটেক কর্মসূচী  অসামান্য  ভূমিকা রেখেছে।  এসব দেশগুলোর মানুষের দক্ষতা উন্নয়ন ও সামর্থ্য  বৃদ্ধি  আইটেক কর্মসূচীর অন্যতম প্রধান লক্ষ্য ।

বৃহস্পতিবার (১৯ সেপ্টেম্বর) সন্ধ্যায় রাজধানীর বারিধারায় ভারতীয় হাই কমিশনে ‘ইন্ডিয়ান টেকনিক্যাল অ্যান্ড ইকোনোমিক করপোরেশন ডে’ (আইটেক ডে) উপলক্ষে আয়োজিত এক অনুষ্ঠানে এ মন্তব্য করেন ভারতীয়  হাই কমিশনার। অনুষ্ঠানে প্রধান অতিথি হিসেবে উপস্থিত ছিলেন বাংলাদেশ সরকারের তথ্যমন্ত্রী ড. হাছান মাহমুদ।

ভারতীয় হাইকমিশনার রীভা গাঙ্গুলী দাশ আরো বলেন, আমরা বাংলাদেশের বিভিন্ন শিক্ষার্থীকে বৃত্তি দিয়ে ভারতের শিক্ষা দেওয়ার ব্যবস্থা করছি। প্রশিক্ষণের আওতায় এনে অনেক কর্মকর্তা-কর্মচারীর দক্ষতা বৃদ্ধির চেষ্টা চালিয়ে যাচ্ছি। আমাদের আইটেক প্রোগ্রামগুলো এক্ষেত্রে সহায়তা করে। গত ৫ বছরে আমরা প্রায় ১ হাজার বিসিএস ক্যাডারকে বিভিন্ন বিষয়ে ট্রেনিং দিয়েছি, এবং আগামীতেও তা অব্যাহত থাকবে। এছাড়া সাধারণ কর্মকর্তা ও শিক্ষার্থীরাও আমাদের প্রোগ্রামের মাধ্যমে শিক্ষা ও প্রশিক্ষণ নিতে পারে।

‘পূর্ববর্তী বিভিন্ন প্রোগ্রাম ছাড়াও আমরা নতুন করে ‘নির্বাচন’ ও ‘ইয়োগা’ প্রশিক্ষণের ওপর কোর্স চালু করছি। আশা করি বাংলাদেশের নাগরিকরা এগুলোর প্রতি আগ্রহী হবে।’

অনুষ্ঠানে ভারতীয় হাইকমিশনের বিভিন্ন পদস্থ কর্মকর্তারা উপস্থিত ছিলেন। আয়োজন শেষে সাংস্কৃতিক অনুষ্ঠান পরিবেশিত হয়।

‘আইটেক’ ভারত সরকারের ডেভলপমেন্ট পার্টনারশিপ অ্যাডমিনস্ট্রেশনের একটি প্রধান কর্মসূচি। ১৯৬৪ সালে এ প্রোগ্রাম চালু হয়। এটি এশিয়া, আফ্রিকা, লাতিন আমেরিকা, ক্যারিবীয় ও প্রশান্ত মহাসাগরীয় অঞ্চলের দেশগুলোসহ বিশ্বের ১৬১টি দেশের সঙ্গে ভারতের বন্ধুত্ব গড়ে তুলতে ভূমিকা রাখছে।

এর আওতায় প্রতি বছর ভারতজুড়ে ৬০টিরও বেশি তালিকাভুক্ত প্রতিষ্ঠান বিভিন্ন কর্মসূচীতে প্রায় ৩০০টি স্বল্প, মধ্যম ও দীর্ঘকালীন কোর্স পরিচালনা করে থাকে। এসব কোর্স পুরোপুরি ভারত সরকারের অর্থায়নে পরিচালিত হয়।

আর পড়তে পারেন