রবিবার, ২৫শে অক্টোবর, ২০২০ খ্রিস্টাব্দ

প্রেয়সী-পড়শী

আজকের কুমিল্লা ডট কম :
সেপ্টেম্বর ৩০, ২০২০
news-image

এ কে সরকার শাওন:

কতদিন পর নয়ন সন্মুখে
হঠাৎ নয়নের অভিবাসী মুর্তিমান!
পারিষদ বেষ্টিত সেই রাজকন্যা
আমার একাদশীর চান!

নয়নযুগল সার্থক হলো
তাকে দেখে দূর থেকে!
তিন যুগ আগে কৃষ্ণচূড়ার নীচে
দু’জনার পথ গেছিলো বেঁকে!

ছোট্টো কৃঞ্চচূড়া আজ মহিরুহ
ফুলে সৌরভে আপন মহিমায়!
দীর্ঘশ্বাসের আওয়াজ শুনে
আমায় ফুল দেয় সান্ত্বনায়!

হালকা পাতলা তেমনি গড়ন
কিছুটা নিস্প্রভ তনুশ্রী!
চোখের নীচে বয়সের ছাপ
তবুও প্রতিমার মত মুখশ্রী!

হ্যাঁ সেই শ্যমলা মুখ
হাসিটাও আছে তেমনি!
হাসিতে কৃপণ সে চিরদিন
গালে টোল আছে তেমনি!

সাদা গাঢ়-নীল পোষাকে
শরতের আকাশের ক্যানভাস!
ঠোঁটে হালকা গোলাপী আভা
তাঁর চিরায়ত অভ্যাস!

কপালে কোন টিপ ছিলো না
আমি নীল টিপ খুঁজে মরি!
চশমার কার্বন ফ্রেমটা সাদামাটা
তা ছিলো না আহা মরি!

শ্যামলা মুখায়বে সাদা ওড়না
আংশিক চুল ঢেকেছিলে তায়!
সবই ছিল আগের মত
শুধু নীল টীপ ছিলো না হায়!

মহাকাশের সব নীল নিয়ে
আমার দেয়া সেই নীল টিপ!
দেখিয়ে দেখিয়ে বার বার পড়ে
কাঁপাতো হৃদয়ের ভিত!

নীল টীপ হারিয়ে গেলো
প্রিয়ার ললাট তলে!
চির বিরহের ভাগ্যারেখা
স্থায়ী হলো করতলে!

শুনেছি সে পাশেই আছে
বহুতল কৃঞ্চচূড়ার ছায়ায়;
তার বেলকনির ফুলের সুবাস
নিয়ে আসে পূবালী বায়!

সে না জানুক আমি তো জানি
প্রেয়সী থেকে সে পড়শী!
তাঁকে দেখে সব ভুলে যাই,
ভুলে যাই আমি নই সুখী !

দু’চোখ, রেল লাইন
আর তটিণী’র দুই তট;
মোদের মত চির পাশাপাশি
তবু মিলনের চির সংকট!

বিরহী মনে আগুন শতগুনে
কুল কাঠের মত জ্বলে!
এতো কাছে সে তবু বহুদূরে
বিধি, এ কোন শাস্তি দিলে!
কবিতাঃ প্রেয়সী-পড়শী!

কাব্যগ্রন্থঃ আলো-ছায়া
এ কে সরকার শাওন
শাওনাজ, উত্তরখান, ঢাকা।

আর পড়তে পারেন