মঙ্গলবার, ১১ই নভেম্বর, ২০১৯ ইং

প্রেমে পড়ুন সঙ্গীর জন্মতারিখ জেনে, কোন রাশির আদর্শ পার্টনার কে?

আজকের কুমিল্লা ডট কম :
ফেব্রুয়ারি ১৩, ২০১৬

মেষ (২১ মার্চ – ২০ এপ্রিল)
মেষ রাশির জাতক-জাতিকার সঙ্গে মেষ রাশির জাতক-জাতিকার ভালবাসার সম্পর্ক তেমন গড়ে ওঠে না। ভালবাসার জন্য এদের সিংহ ও ধনুকে প্রাধান্য দেওয়া উচিত। মেষ ও সিংহের রসায়ন দুর্দান্ত।konZa

বৃষ (২১ এপ্রিল – ২১ মে)
বৃষ রাশির জাতক-জাতিকাদের জন্য ভালবাসার মানুষ সব থেকে ভাল কন্যা রাশির জাতক-জাতিকা। তবে অনেক সময় বৃষ রাশির নারীরা ভালবাসা বেশি পান নিজের রাশির জাতকের থেকে। তবে সেরা জুটি বৃষ ও কন্যা।

মিথুন (২২ মে – ২১ জুন)
মিথুনের জাতক-জাতিকার সঙ্গে তুলা ও সিংহ রাশির সম্পর্ক গভীর হয়। পুরুষের সবচেয়ে ভাল সঙ্গী হতে পারে মেষ নারী। অনেক সময় নারীর ভাল সঙ্গী হতে পারে কর্কটের জাতক। মিথুন ও সিংহের জুটি ফাটাফাটি।

কর্কট (২২ জুন – ২২ জুলাই)
কর্কটের ভাল সঙ্গী হতে পারে কন্যা রাশি। জীবনসঙ্গী হিসেবে কন্যা রাশিকে অগ্রাধিকার দিতেই পারেন। কন্যা রাশির নারী জাতকের জীবনকে নানাভাবে প্রভাবিত করতে পারে। কুম্ভ রাশির সঙ্গেও সম্পর্ক হতে পারে।

সিংহ (২৩ জুলাই – ২৩ আগস্ট)
মেষ রাশির যে কারওকে সঙ্গী করতে পারে সিংহ রাশি। সিংহ জাতিকার সেরা সঙ্গী পাওয়া যাবে মিথুন ও ধনু রাশিতে। কন্যা রাশিকে এড়িয়ে যাওয়াই ভাল। মেষ আর সিংহ একটা পারফেক্ট জুটি।

কন্যা (২৪ আগস্ট – ২৩ সেপ্টেম্বর)
কন্যা রাশির জাতকের আদর্শ জীবনসঙ্গী হতে পারে কর্কট রাশির জাতক। মকরের সঙ্গেও সম্পর্ক গড়ে উঠতে পারে। এড়িয়ে চলা উচিত সিংহ রাশিকে। কর্কট রাশির ভালোবাসার ক্ষেত্রে বাধা হয়ে দাঁড়াবে সিংহ জাতক/জাতিকা।

তুলা (২৪ সেপ্টেম্বর – ২৩ অক্টোবর)
এ জাতকের জন্য ভালো বন্ধু হতে পারে মিথুন জাতিকার কেউ। এছাড়া নিজ রাশির সঙ্গেও ভালো বনিবনা হতে পারে। তবে বৃশ্চিকের সঙ্গে ভালবাসার সম্পর্ক গড়া ঠিক হবে না। কারণ তুলা ও বৃশ্চিকের ভালবাসার ঘর হবে ক্ষণস্থায়ী।

বৃশ্চিক (২৪ অক্টোবর – ২২ নভেম্বর)
এ জাতকের সঙ্গে ধনু, মকর ও মীন জাতকের সম্পর্ক হতে পারে। নিজ রাশির জাতক-জাতিকার সঙ্গে সম্পর্ক হলে তা ক্ষণস্থায়ী হতে পারে। বিয়ের ক্ষেত্রে কর্কট জাতক/ জাতিকাকে এড়িয়ে যেতে হবে। কারণ, কর্কট ও বৃশ্চিকের সমন্বয়ে দাম্পত্য স্থায়ী হয় না।

ধনু (২৩ নভেম্বর – ২১ ডিসেম্বর)
এ জাতক বা জাতিকার সঙ্গে মেষ ও মকরের ভালো সম্পর্ক গড়ে উঠতে পারে। ধনু জাতক বা জাতিকাকে এড়িয়ে চলুন। পাশাপাশি, বৃশ্চিক, মকর ও মীন রাশির কাউকে প্রাধান্য দেওয়া যেতে পারে। এ জাতকের সবচেয়ে ভালো বন্ধু হতে পারে মেষ রাশির জাতকের সঙ্গে।

 

মকর (২২ ডিসেম্বর – ২০ জানুয়ারি)
এ জাতকের সঙ্গে নিজ জাতকের বন্ধুত্ব স্থায়ী হয় না। কন্যা, ধনু ও মীন জাতকের মধ্যে থেকে বন্ধু খুঁজে নেওয়া ভালো। কোনও কোনও ক্ষেত্রে তুলা রাশির সঙ্গেও সম্পর্ক করা যেতে পারে। কারণ তুলা ও মকরের সমন্বয়ে প্রেমিক-প্রেমিকার বৃহস্পতি থাকে তুঙ্গে। কুম্ভ রাশির সঙ্গেও সম্পর্ক গড়া যেতে পারে।

কুম্ভ (২১ জানুয়ারি – ১৮ ফেব্রুয়ারি)
এ জাতকের জন্য সবচেয়ে ভালো বন্ধু পাওয়া যাবে মকর রাশির জাতক/ জাতিকা থেকে। কুম্ভ ও মকরের সমন্বয়ে দাম্পত্য এগিয়ে যায় অনেকদূর। পাড়ি দিতে পারে অনেক বাধা-বিপত্তি। এদের বৃহস্পতি থাকে তুঙ্গে। মিথুন জাতক/জাতিকার জন্য জীবন হতে পারে বিষাদময়।

মীন (১৯ ফেব্রুয়ারি – ২০ মার্চ)
এ জাতকের সবচেয়ে ভালো বন্ধু হতে পারে বৃশ্চিক রাশি। মীন ও বৃশ্চিকের সমন্বয়ে শনির দশা কেটে যেতে পারে। এগিয়ে যাওয়া যায় সমৃদ্ধির সঙ্গে। পাশাপাশি মকরের সঙ্গে সম্পর্ক করা যেতে পারে। তবে, কুম্ভ রাশির সঙ্গে প্রেম ও ভালোবাসর সম্পর্ক গড়া ঠিক হবে না।