মঙ্গলবার, ৪ আগস্ট, ২০২০

পুলিশকে করোনা মোকাবেলার সরঞ্জাম দিয়েছে মার্কিন দূতাবাস

আজকের কুমিল্লা ডট কম :
জুলাই ৯, ২০২০
news-image

 

তারিক চয়নঃ

ঢাকাস্থ যুক্তরাষ্ট্রের দূতাবাস বাংলাদেশ সরকারের স্বাস্থ্য মন্ত্রণালয় ও স্বরাষ্ট্র মন্ত্রণালয়ের সাথে সমন্বয়ের মাধ্যমে কোভিড-১৯ বা করোনাভাইরাস মোকাবেলায় ফার্স্ট রেসপন্ডারদের ব্যক্তিগত সুরক্ষা সরঞ্জাম (পিপিই) দিয়েছে। আজ দূতাবাসের এক সংবাদ বিজ্ঞপ্তিতে একথা জানানো হয়।

বাংলাদেশে নিযুক্ত যুক্তরাষ্ট্রের রাষ্ট্রদূত আর্ল মিলার এবং যুক্তরাষ্ট্রের সামরিক বাহিনীর ইন্দো-প্যাসিফিক কমান্ডের দূতাবাসের প্রতিনিধিরা বাংলাদেশের কোভিড-১৯ মোকাবেলায় অব্যাহত সহায়তার অংশ হিসেবে গতকাল ৮ই জুলাই বাংলাদেশ পুলিশ হেডকোয়ার্টার্সে পুলিশের মহাপরিদর্শক ড. বেনজীর আহমদের সাথে দেখা করে অত্যাবশ্যকীয় ব্যক্তিগত সুরক্ষা সরঞ্জাম (পিপিই) হস্তান্তর করেন। এটি যুক্তরাষ্ট্রের পক্ষ থেকে বাংলাদেশকে পিপিই সহায়তা দেয়ার পরিকল্পিত কার্যক্রমের চতুর্থ অনুদান।

জানা যায়, এখন পর্যন্ত যুক্তরাষ্ট্র শুধু স্টেট ডিপার্টমেন্ট ও ইউএসএআইডি’র মাধ্যমেই কোভিড-১৯ মোকাবেলায় বাংলাদেশকে ৪৩.৪ মিলিয়ন ডলারের বেশি সহায়তা দিয়েছে । এছাড়াও ডিপার্টমেন্ট অফ ডিফেন্স, ডিপার্টমেন্ট অফ এগ্রিকালচার ও সেন্টারস ফর ডিজিজ কন্ট্রোল এন্ড প্রিভেনশন’ এর মাধ্যমেও সাহায্য ও কারিগরি সহায়তা দেয়া হচ্ছে।

গতকাল ঢাকার যুক্তরাষ্ট্রের দূতাবাস যে ব্যক্তিগত সুরক্ষা সরঞ্জামগুলো হস্তান্তর করেছে তার মধ্যে রয়েছে ৪০০০ কেএন৯৫ সার্জিক্যাল মাস্ক, ২০০ মিলিলিটারের ৩২০০ বোতল হ্যান্ড স্যানিটাইজার, ৪০০০ জোড়া সার্জিক্যাল গ্লাভস, ৫৫০ পাউন্ড গুড়া ব্লিচ, ২২ টি জীবাণুনাশক ব্যাকপ্যাক স্প্রেয়ারস, ৭০০টি মুখমন্ডল ঢাকার শিল্ড, এবং ২৫টি ইনফ্রারেড থার্মোমিটার ; সবগুলো উপকরণ স্থানীয়ভাবে বাংলাদেশী কোম্পানিগুলোর কাছ থেকে কেনা হয়েছে।

বিজ্ঞপ্তিতে বলা হয়, বাংলাদেশ পুলিশ কোভিড-১৯ মোকাবেলার ক্ষেত্রে প্রথমসারির যোদ্ধা হিসেবে দেশব্যাপী স্বাস্থ্য মন্ত্রণালয়ের কোভিড-১৯ মোকাবেলা কার্যক্রম বাস্তবায়নে গুরুত্বপূর্ণ ভূমিকা পালন করছে। যুক্তরাষ্ট্রের দূতাবাসের দেয়া পিপিই পুলিশ বিভাগের সদস্যদের নিজেদের সুরক্ষিত রেখে বাংলাদেশের জনগণের জানমালের নিরাপত্তা নিশ্চিত করার কাজে সহায়তা করবে।

উল্লেখ্য, কোভিড-১৯ প্রাদুর্ভাবের পর থেকে এই মহামারী মোকাবেলায় যুক্তরাষ্ট্রের সরকার বিশ্বব্যাপী জরুরি স্বাস্থ্য, মানবিক, অর্থনৈতিক ও উন্নয়ন সহায়তা কর্মকাণ্ডে সরকার, আন্তর্জাতিক সংস্থা ও এনজিওদের ১. ৩ বিলিয়ন ডলারেরও বেশি অর্থ সহায়তার প্রতিশ্রুতি দিয়েছে। ঢাকার যুক্তরাষ্ট্রের দূতাবাস বাংলাদেশী সংস্থাগুলোকে দেশব্যাপী কাজের জন্য সহায়তা করে চলেছে যা বিগত ২০ বছর ধরে যুক্তরাষ্ট্রের দেয়া ১ বিলিয়ন ডলারেরও বেশি স্বাস্থ্য সহায়তার সাথে যুক্ত হচ্ছে। এই সহায়তা বাংলাদেশের সকল মানুষের জন্য মানসম্পন্ন জীবনরক্ষাকারী স্বাস্থ্যসেবা নিশ্চিতকরণে যুক্তরাষ্ট্রের দীর্ঘমেয়াদী অঙ্গীকারের বিষয়টিকে আবারো জোরালোভাবে প্রকাশ করছে।

মহামারী মোকাবেলার লড়াইয়ে যুক্তরাষ্ট্র বাংলাদেশের পাশে থেকে কাজ করতে এবং দুই দেশের মধ্যকার গভীর সম্পর্ককে আরো জোরদার করতে অঙ্গীকারাবদ্ধ উল্লেখ করে বিজ্ঞপ্তিতে বলা হয়, ঢাকার যুক্তরাষ্ট্রের দূতাবাস স্থানীয় পর্যায়ে এলাকাবাসীর মধ্যে কোভিড-১৯ ছড়িয়ে পড়া রোধে প্রথম সাড়াদানকারী হিসেবে কর্মরত বাংলাদেশ পুলিশকে অত্যাবশ্যকীয় ব্যক্তিগত সুরক্ষা সরঞ্জাম (পিপিই) দিতে পেরে গর্বিত। এই অনুদান যুক্তরাষ্ট্রের দূতাবাস কর্তৃক দেয়া অন্যান্য অনুদানের অতিরিক্ত। যুক্তরাষ্ট্রের দূতাবাস সম্প্রতি বাংলাদেশ কাস্টমস বিভাগের কর্মকর্তাদের, কমলাপুর রেলওয়ে জেনারেল হাসপাতাল, এবং বাংলাদেশ ফায়ার সার্ভিস ও সিভিল ডিফেন্স বিভাগের ফার্স্ট রেসপন্ডারদের পিপিই দিয়েছে। বাংলাদেশ পুলিশ ও অন্যান্য ফার্স্ট রেসপন্ডাররা, স্বাস্থ্যসেবাদানকারী কর্মী, কাস্টমস কর্মকর্তা, মুদি ও ওষুধের দোকানে কর্মরত কর্মী, এই মহামারী মোকাবেলার লড়াইয়ে যুক্তরাষ্ট্র বাংলাদেশের পাশে থেকে কাজ করতে এবং আমাদের দুই দেশের মধ্যকার গভীর সম্পর্ককে আরো জোরদার করতে অঙ্গীকারাবদ্ধ।

আর পড়তে পারেন