বুধবার, ২০শে জানুয়ারি, ২০২১ খ্রিস্টাব্দ

নিখোঁজ মুফতি মুস্তাকুন্নবীর ব্যবহৃত মুঠোফোন থেকে ৫ লক্ষ টাকা চাঁদা দাবি

আজকের কুমিল্লা ডট কম :
মে ২৭, ২০১৭
news-image

স্টাফ রিপোর্টারঃ
কুমিল্লায় মুফতি মাওলানা মুস্তাকুন্নবী কাশেমী ও তাঁর খাদেম-চালকসহ নিখোঁজ হওয়ার প্রায় ৩ দিন অতিবাহিত হতে যাচ্ছে। এখনো তাদের সন্ধান মিলেনি। এরই মধ্যে বৃহস্পতিবার গভীররাতে নিখোঁজ মুফতি মাওলানা মুস্তাকুন্নবী কাশেমীর মোবাইল ফোন থেকে তার ভাইয়ের কাছে মুক্তিপণ বাবদ ৫ লাখ টাকা দাবি করা হয়েছে। এ দিকে ২৪ ঘন্টার মধ্যে ৩ জনের সন্ধান দাবিতে শুক্রবার বিকালে নগরীর লাকসাম রোডস্থ জামিয়া আরাবিয়া কাসেমুল উলুম মাদ্রাসা প্রাঙ্গনে কুমিল্লা জেলা ক্বওমী মাদ্রাসা সংগঠনের উদ্যোগে সংবাদ সম্মেলন করা হয়। এই সময়ের মধ্যে তাঁদের সন্ধান না দিলে আন্দোলন কর্মসূচি ঘোষণা করা হবে বলে হুমকি দেয়া হয়। থানা পুলিশ ও জেলা গোয়েন্দা সংস্থা বিভিন্ন স্থানে অভিযান চালালেও মুফতি মাওলানা মুস্তাকুন্নবী কাশেমীর ব্যবহৃত মোবাইল ফোনের ট্র্যাকিং করে অবস্থান জানতে না পারায় তাদের ভাগ্যে কি ঘটেছে তা নিশ্চিত করতে পারেনি।
সংবাদ সম্মেলনে কুমিল্লা জেলা ক্বওমী মাদরাসা সংগটনের সভাপতি ও ক্বওমী মাদরাসা শিক্ষা বোর্ডের সিনিয়র সহসভাপতি শাইখুল হাদিস আল্লামা আশরাফ আলী জানান, তিনি মুফতি মাওলানা মুস্তাকুন্নবী কাশেমীর বিষয়ের স্বরাষ্ট্রমন্ত্রী আসাদুজ্জামান কামালের সাথে কথা বলেছেন। মন্ত্রী তাঁকে বিষয়টি গুরুত্বের সাথে দেখা হচ্ছে বলে জানিয়েছেন।
পুলিশ ও নিখোঁজদের পারিবারিক সূত্রে জানা যায়, কুমিল্লার কোটবাড়ি এলাকার সুধন্যপুর মাদরাসার অধ্যক্ষ ও মুফতি মাওলানা মুস্তাকুন্নবী কাশেমী গত বুধবার রাতে লক্ষ্মীপুর সদর উপজেলার টুমচর থেকে ওয়াজ মাহফিল শেষে নিজস্ব প্রাইভেটকারে করে কুমিল্লায় বাড়ির উদ্দেশ্যে রওয়ানা করেন। রাত সাড়ে ১২টার দিকে তাঁরা কুমিল্লার সদর দক্ষিণ উপজেলার লালমাই এলাকায় পৌঁছেন এবং ওই সময় পর্যন্ত তাঁদের সঙ্গে পরিবারের লোকজনের মোবাইল ফোনে কথা হয়েছিল। এরপর থেকে তাঁদের মোবাইল ফোন বন্ধ থাকায় পরিবারের লোকজন কোনো যোগাযোগ করতে পারেননি। এতে বৃহস্পতিবার বিকালে এ বিষয়ে মুফতি মাওলানা মুস্তাকুন্নবী কাশেমীর মাদরাসার সভাপতি হাজী শফিকুল ইসলাম সদর দক্ষিণ মডেল থানায় জিডি করেন। এর পর থেকে তাদের সন্ধানে অভিযানে মাঠে নামে পুলিশ ও গোয়েন্দা সংস্থার একাধিক টিম। কিন্তু শনিবার সকাল পর্যন্ত তাদের কোনো সন্ধান পাওয়া যায়নি। হাজী শফিকুল ইসলাম জানান, এরই মধ্যে বৃহস্পতিবার গভীর রাতে নিখোঁজ মুফতী মোস্তাকুন্নবীর মোবাইল ফোন থেকে তার ছোট ভাই মাওলানা মারুফ বিল্লাহর কাছে তাদের মুক্তিপণ বাবদ ৫ লাখ টাকা দাবি করা হয়েছে।

আর পড়তে পারেন