সোমবার, ২৩শে সেপ্টেম্বর, ২০১৯ ইং

নবীনগর আসনে ইসলামী আন্দোলন দলের প্রার্থী হিসেবে মাওলানা উসমান গণি রাসেল চূড়ান্ত

আজকের কুমিল্লা ডট কম :
জানুয়ারি ২৭, ২০১৮
news-image

মোঃ দেলোয়ার হোসেন, নবীনগর :
আগামী একাদশ জাতীয় সংসদ নির্বাচনে ব্রাহ্মণবাড়িয়া-৫ (নবীনগর) আসন থেকে ইসলামী আন্দোলন বাংলাদেশ দলের প্রার্থী হচ্ছেন ইসলামী যুব আন্দোলন মজলিসে শুরার সদস্য, সাবেক ছাত্রনেতা মাওলানা উসমান গণি রাসেল। কেন্দ্রীয় সূত্র ও উপজেলার নেতাকর্মীদের সাথে কথা বলে এমনই ইঙ্গিত পাওয়া গেছে। মাওলানা উসমান গণি রাসেল ১৯৯৮ সাল থেকেই ছাত্র রাজনীতির সঙ্গে জড়িত। সাধারণ সদস্য থেকে উপজেলা ইসলামী শাসনতন্ত্র ছাত্র আন্দোলনের সভাপতির দায়িত্বও পালন করেছেন বেশ সুনামের সাথে। তিনি বর্তমানে সৌদী আরব প্রবাসী। তিনি ইসলামী যুব আন্দোলন কেন্দ্রীয় মজলিসে শুরার সদস্য ও ইসলামী আন্দোলন বাংলাদেশ সৌদিআরব কেন্দ্রীয় কমিটির সহ সাংগঠনিক সম্পাদক এছাড়াও রিয়াদ মহানগর শাখার জয়েন্ট সেক্রেটারির দায়িত্ব পালন করছেন তিনি।

দলের প্রার্থী মাওলানা উসমান গণি রাসেলের মতামত জানতে চাওয়া হলে তিনি বলেন, হক্বের পতাকাবাহী সংগঠন ইসলামী আন্দোলন বাংলাদেশ। শান্তির প্রতিক হাতপাখার পক্ষে এবার জনমত গড়ে উঠেছে। দল যদি আমাকে মনোনীত করেন যথাসাধ্য চেষ্টা করবো তাদের মান রাখার জন্য। অবহেলিত নবীনগরের উন্নয়নে নিজেকে নিয়োজিত রাখার চেষ্টা করবো এবং নবীনগরের দল-মত নির্বিশেষে সকল আলেম ওলামাদের নিয়ে একটি ঐক্য গড়ার চেষ্টা করবো।

সৌদি  প্রবাসী ইসলামী আন্দোলন রিয়াদ শাখার মজলিসে শুরার সদস্য, নবীনগরের কৃতি সন্তান মুহাম্মাদ জাকির হোসেন বলেন, সদাহাস্যোজ্জল, মিষ্টভাষী, জনদরদী, দলের জন্য নিবেদিত প্রাণ মাওলানা উসমান গণি রাসেল ভাইকে দলের প্রার্থী মনোনীত করে নেতৃবৃন্দ এক সঠিক সিদ্ধান্ত নিয়েছেন। তিনি সে কারণে ইসলামী আন্দোলন বাংলাদেশের নীতিনির্ধারণী ফোরামকে কৃতজ্ঞতা জানিয়েছেন।

ইসলামী যুব আন্দোলন নবীনগর উপজেলা শাখার সদ্য ঘোষিত সভাপতি আলহাজ্ব মাওলানা রায়হান উদ্দীন ও সাধারন সম্পাদক হাফেজ মনিরুল ইসলাম বলেন, মাওলানা উসমান গনী রাসেল সাহেব গত কোরবানী ঈদকে সামনে রেখে পোষ্টার-ফেস্টুনের মাধ্যমে এলাকাবাসীকে ঈদ শুভেচ্ছা জানিয়ে ব্যাপক আলোচনায় এসেছেন তিনি। এলাকার যুব ও ছাত্র সমাজের মুখে মুখে ঘুরে বেড়াচ্ছে তরুন এই যুব নেতার নাম। তিনি প্রবাস থেকে দেশে ফিরলেই ব্যাপক শোডাউনের প্রস্তুতি নিচ্ছি। হক্বের দাওয়াত ঘরে ঘরে পৌঁছে দিতে ইসলামী যুব আন্দোলন প্রস্তুত রয়েছে।

ইসলামী আন্দোলন নবীনগর উপজেলা শাখার সাধারণ সম্পাদক মাওলানা মুমিনুল হক বলেন, মাওলানা উসমান গণি রাসেল ভাইয়ের পক্ষে আমরা সবাই ঐক্যবদ্ধ। দলের কেন্দ্রীয় যুগ্ম মহাসচিব নবীনগরের কৃতি সন্তান অধ্যাপক মাহবুব ভাই আমাদেরকে নিয়মিত দিক-নির্দেশনা দিচ্ছেন আগামী একাদশ জাতীয় সংসদ নির্বাচনে হাতপাখার পক্ষে নবীনগরে আমরা চমক দেখাবো ইনশা আল্লাহ্।

এ ব্যাপারে ইসলামী আন্দোলন বাংলাদেশ নবীনগর উপজেলার সভাপতি মাওলানা জসীম উদ্দিন বলেন, মাওলানা উসমান গণি রাসেল একজন সমাজ হিতৈষী মানুষ। সামাজিক উন্নয়নমূলক কর্মকান্ডে নিজেকে নিয়োজিত রেখেছেন। প্রবাসে থেকেও দলের খোজ খবর রাখেন নিয়মিত। অতীতের যে কোন সময়ের চেয়ে নবীনগরে ইসলামী আন্দোলনের সাংগঠনিক শক্তি এখন মজবুত। মাওলানা উসমান গণি রাসেল ভাই ই আমাদের প্রার্থী- তার বিকল্প নেই।

ইসলামী আন্দোলন বাংলাদেশ ব্রাহ্মণবাড়িয়া জেলা শাখার সাধারণ সম্পাদক মাওলানা উবায়দুল হক বলেন, মাওলানা উসমান গণি রাসেল দলের এক নিবেদিত প্রাণ। তিনি ছাত্র রাজনীতি থেকেই পীর সাহেব চরমোনাই’র আদর্শে রাজনীতি করছেন। তৃণমূল পর্যায় থেকেও তরুণ এ নেতার নাম এসেছে। আগামী একাদশ জাতীয় সংসদ নির্বাচনে হাত পাখার প্রার্থী হিসেবে আমরা মাওলানা উসমান গণি রাসেলের নাম সুপারিশ করেছি।
ইসলামী শাসনতন্ত্র ছাত্র আন্দোলন ব্রাহ্মণবাড়িয়া জেলা শাখার সাবেক সহ-সভাপতি, বর্তমানে মালয়েশিয়া প্রবাসী মুহাম্মাদ ফয়জুল্লাহ বলেন, মাওলানা উসমান গণি রাসেল ভাইয়ের হাত ধরেই আমরা ছাত্র আন্দোলনে যোগ দিয়েছিলাম উনার দিক নির্দেশনায় নবীনগর সহ গোটা ব্রাহ্মণবাড়িয়া জেলায় ছাত্র সমাজের কাছে এক পরিচিত নাম ‘ইসলামী শাসনতন্ত্র ছাত্র আন্দোলন’। ছাত্র সমাজের প্রিয় মুখ সাবেক ছাত্র নেতা মাওলানা উসমান গণি রাসেল ভাইকে দলের প্রার্থী হিসেবে মনোনীত করায় দলের মুহতারাম আমীর পীর সাহেব চরমোনাইকে কৃতজ্ঞতা জানাই।

এ বিষয়ে ইসলামী আন্দোলন বাংলাদেশের যুগ্ম মহাসচিব অধ্যাপক মাহাবুবুর রহমান এর কাছে জানতে চাওয়া হলে তিনি বলেন, তৃণমূল থেকে মাওলানা উসমান গণি রাসেলের নাম আমরা প্রার্থী হিসেবে পেয়েছি। দলের নীতিনির্ধারণী ফোরামের পছন্দের তালিকায় মাওলানা উসমান গণি রাসেল। তরুণ এই যুবনেতাকে মানুষ গ্রহণ করবে বলে আমি আশাবাদী।

আর পড়তে পারেন