শনিবার, ২১শে সেপ্টেম্বর, ২০১৯ ইং

নগরীর আশ্রাফপুরে বসত বাড়ি না ছাড়ায় প্রাণনাশের হুমকি, বিচার না পেলে বসত মালিকের স্বপরিবারে আত্নহত্যার হুমকি( ভিডিও)

আজকের কুমিল্লা ডট কম :
নভেম্বর ১৭, ২০১৮
news-image

 

স্টাফ রিপোর্টারঃ
কুমিল্লা নগরীর উত্তর আশ্রাফপুরের কর্মাস কলেজ সংলগ্ন এলাকায় নিজের পৈত্রিক সম্পত্তি ও বসত বাড়ি  না ছাড়ায় বসত মালিককে প্রাণনাশের হুমকি দিয়েছে স্থানীয় আওয়ামীলীগ ও এর অঙ্গ সংগঠনের রাজনীতিবিদ এবং তাদের লেলিয়ে দেওয়া সন্ত্রাসীরা। এদিকে বিচার না পেলে ফেসবুকে বসত মালিক   কামাল উদ্দিন আহম্মেদ স্বপরিবারে আত্নহত্যার হুমকি দিয়েছেন।

বসত মালিক কামাল উদ্দিন আহমেদ জানান,  নগরীর  আশ্রাফপুরে আমার পৈত্রিক সম্পত্তিতে আমি স্বপরিবারে থাকি।   কিন্তু স্থানীয় সন্ত্রাসীরা এ বাড়ি দখলের জন্য চেষ্টা করছে। বাড়ির কাগজপত্র সব আমার নামে। কিন্তু নিজের সম্পত্তি ছেড়ে চলে যাওয়ার জন্য তারা বলে। না গেলে বাড়িতে জীবন্ত পুতে ফেলার হুমকি দেয়। বাড়ি ছেড়ে চলে যাওয়ার জন্য সন্ত্রাসীরা প্রতিদিন মোবাইল ফোনসহ বিভিন্ন ভাবে প্রাণনাশের হুমকি দিয়ে আসছে ।

কামাল উদ্দিন আহমেদ বৃহস্পতিবার বিকেলে তার পৈত্রিক সম্পত্তি রক্ষা ও প্রাণনাশের হুমকির ঘটনায় প্রশাসনের কাছে নিরাপত্তা চেয়ে একটি সংবাদ সম্মেলন করেছেন। এর আগে ৩ নভেম্বর  তিনি কুমিল্লা সদর দক্ষিণ থানায় অজ্ঞাতদের বিরুদ্ধে একটি জিডি করেছে। যার নং ১৩৭।

নিজ বাড়িতে সংবাদ সম্মেলনে ভুক্তভোগি কামাল উদ্দিন আহম্মেদ জানান, উত্তর আশ্রাফপুর হাউজিং ৩নং রোড ৬ নং বাসা ও জায়গাটি তার পৈত্রিক সম্পত্তি। গত কয়েকদিন পূর্বে রেনেসাঁ এগ্রো কো. প্রা. লি. এর ব্যবস্থাপনা পরিচালক শামিম কবির নামে এক ব্যক্তি জাল কাগজপত্র করে সম্পত্তিটি তার দাবি করে বলে অভিযোগ করেন। পরবর্তীতে সেই কাগজপত্রের প্রমাণ না দেখাতে পেরে বিভিন্ন অজ্ঞাত মোবাইল নাম্বার দিয়ে হুমকি-ধমকি দিয়ে আসছে। এমনকি বিভিন্ন প্রশাসনের বড় বড় পদের কর্মকর্তা ও এমপি মন্ত্রীর পরিচয় দিয়ে হয়রানিসহ সরেজমিনে এসে পৈত্রিক সম্পত্তি ও বসত বাড়ি ছেড়ে দেওয়ার জন্য প্রাণনাশসহ বিভিন্ন হুমকি দিয়ে আসছে। যার ফলে আমি এখন গৃহবন্ধি হয়ে পড়েছি। আদালত ও প্রশাসনের সাহায্যও নিতে পারছি না। আমার ঘরে আমি এখন তালা বদ্ধ হয়ে বসবাস করছি। কারণ বের হলে আমাকে হত্যা করা হবে। বাড়িটা দখল করা হবে।

বিভিন্ন চাপ ও প্রাণ নাশের হুমকিতে বেহাল দশায় পতিত কামাল উদ্দিন আহমেদ ফেসবুকে বিভিও বার্তায় বলেন, ইপিজেড পুলিশ ফাড়িঁর ইনচার্জ আজিজ সাহেব আমাকে বাসায় এসে ধমক দিয়ে বাড়ি ছেড়ে চলে যেতে বলেছে। আমি বলেছি বাড়ির সব কাগজপত্র আমার নামে। পরে ইপিজেড পুলিশ ফাড়িঁর ইনচার্জ আজিজ সাহেব  বলল-বাড়ির কাগজপত্র নিয়ে ফাঁড়িতে আসবেন । আমি বাড়ির দলিল ও আইনজীবি নিয়ে ইপিজেড ফাঁড়িতে যাই। কিন্তু আজিজ সাহেব আমার কোন কাগজপত্র দেখলেন না। কোন কথা শুনেই বলে দিলেন-বাড়ি ছেড়ে না গেলে বিভিন্ন মামলায় আমাকে গ্রেফতার করা হবে।  ইপিজেড ফাঁড়ির সামনে প্রায় ২ শতাধিক সন্ত্রাসী বাহিনী দাড়িয়েছিল আমাকে স্বপরিবারে হত্যার জন্য। আমি এখন গৃহবন্দি। আমি আওয়ামীলীগের  রাজনীতি করি। অথচ  আওয়ামীলীগের একটি গ্রুপ আমাকে বাড়ি থেকে বের করে দিতে চায়। কিন্তু আমাকে যদি বাসা থেকে বের করে দেওয়া হয়,  আমি , আমার গর্ভবতী স্ত্রী, দুই কন্যা সন্তান বিষ খেয়ে এখানেই আত্নহত্যা করবো।

এ বিষয়ে কুমিল্লা সদর দক্ষিণ থানার ইপিজেড পুলিশ ফাঁড়ির উপ-পরিদর্শক আজিজুল হক জানান, আমরা কোন হুমকি দেইনি। কামাল উদ্দিন থানায় একটি জিডি করেছে। এটা তদন্ত চলছে।

আর পড়তে পারেন