রবিবার, ৭ই জুন, ২০২০ ইং

ঢাকা-চট্টগ্রাম মহাসড়কের কুমিল্লায় পণ্যবাহী পিকআপে যাত্রী বহন

আজকের কুমিল্লা ডট কম :
মার্চ ২৮, ২০২০
news-image

শরীফুল ইসলাম, চান্দিনা :
মরণ ব্যাধি নভেলা করোনা ভাইরাস সতর্কতায় গণমজায়েত বন্ধ করতে গণপরিবহন নিষিদ্ধ করেছে সড়ক পরিবহন মন্ত্রণালয়। সেই সুযোগে ঢাকা-চট্টগ্রাম মহাসড়কের কুমিল্লায় পণ্যবাহী পিকআপে চলছে যাত্রী পরিবহন!

শনিবার (২৮ মার্চ) দিন ব্যাপী মহাসড়কের দাউদকান্দি থেকে ময়নামতি ক্যান্টনমেন্ট এলাকা পর্যন্ত ঘুরে দেখা গেছে পণ্যবাহী ট্রাক-পিকআপ ভ্যান যোগে চলছে যাত্রী পরিবহন। শিশু, নারী-পুরুষ সহ তিল ধারণের ঠাই নেই ওই সব ট্রাক-পিকআপে।

অধিকাংশ যাত্রীদের সাথে কথা বলে জানা যায় লম্বা ছুটিতে আত্মীয়-স্বজনদের বাড়িতে বেড়াতে যাচ্ছেন তারা। মহাসড়কে যাত্রীদের চাপ থাকায় পণ্য পরিবহনকারী ট্রাক ও পিকআপের চালকরা হাতিয়ে নিচ্ছেন অতিরিক্ত ভাড়া।

মহাসড়কে যাত্রীবাহী বাসের ন্যায় যাত্রী বহনকারী ওই সব ট্রাক-পিকআপ ভ্যান অনায়াসে মিলছে। তাই যাতায়াতেও যাত্রীদের আগ্রহের কমতি নেই। আর ট্রাক-পিকআপে গাদাগাদি করেই ছুটে চলছেন এক উপজেলা থেকে আরেক উপজেলা। আবার ১/২টি ট্রাক-পিকআপ বদল করে চলে যাচ্ছেন এক জেলা থেকে আরেক জেলায়।

মহাসড়কের চান্দিনা-বাগুর বাস স্টেশনে কথা হয় যাত্রী রহিমা বেগম এর সাথে। তিনি জানান- আমি মাধাইয়া থেকে এসেছি, কুমিল্লা যাবো। ছেলে-মেয়ের স্কুল বন্ধ তাই বোনের বাড়িতে রওয়ানা হয়েছি। এই পিকআপটি ক্যান্টনমেন্ট যাবে। প্রতিজন ৫০ টাকা ভাড়ায় উঠেছি।
করোনা ভাইরাস থেকে সতর্কতার জন্য সরকার সকলকে বাড়িতে থাকার জন্য ছুটি দিয়েছেন। কিন্তু আপনারা জীবনের ঝুঁকি নিয়ে কেন বেড় হয়েছেন এমন প্রশ্নে তিনি জানান- ‘আল্লাহর রহমতে আমরা সবাই সুস্থ আছি’!

বিপরীত দিক থেকে আসা অপর একটি পিকআপের একাধিক যাত্রী জানান। এই গাড়িটি ক্যান্টনমেন্ট থেকে এসেছে। ২০ টাকা বাসা ভাড়ার স্থলে পিকআপে ৪০টাকা নিচ্ছে। আবার কোরপাই থেকে চান্দিনায় ৫ টাকার ভাড়া। সেখানে ২০ টাকা ভাড়া নিচ্ছে।

কথা হয় পিকআপ চালক বিল্লাহ হোসেন এর সাথে। পণ্যবাহী পিকআপ ভ্যানে যাত্রী বহন করছেন কেন? এমন প্রশ্নে তিনি জানান- সারা দিনই তো চালাইতেছি। কেউ কিছু কয় না, বাধাও দেয় না। তাই চালাইতাছি।

করোনা সতর্কতায় গণজমায়েত ঠেকাতে জেলা ও উপজেলার প্রত্যন্ত অঞ্চলেও থানা পুলিশের বিশেষ অভিযানের ন্যায় মহাসড়কেও হাইওয়ে পুলিশের একই অভিযান আশা করছেন সচেতন নাগরিকরা।

করোনা সতর্কতায় গণপরিবহনের বিকল্প হিসেবে ট্রাক-পিকআপে যাত্রী বহনে হাইওয়ে পুলিশের কঠোরতা না থাকায় অনেকটাই নিবিঘ্নে চলছে ওইসব যান। যারফলে প্রতিটি স্টেশন এলাকায় রিক্সা-ভ্যান, ট্রাক-পিকআপ সহ যাত্রীদের জমায়েত দেখা গেছে।

এ ব্যাপারে হাইওয়ে পুলিশের অতিরিক্ত পুলিশ সুপার (কুমিল্লা অঞ্চল) রহমত উল্লাহ অপু জানান- আমাদের অভিযান অব্যাহত রয়েছে। পণ্য পরিবহনের গাড়িতে যাত্রী পরিবহন করা দেখা মাত্রই ব্যবস্থা নিচ্ছে হাইওয়ে পুলিশ।

আর পড়তে পারেন