শনিবার, ১৫ই নভেম্বর, ২০১৯ ইং

ডায়াবেটিস রোগীদের দাম্পত্য সমস্যা

আজকের কুমিল্লা ডট কম :
মার্চ ২৪, ২০১৯
news-image

ডা. অজিত কুমার পালঃ

ডায়াবেটিস একটি দীর্ঘ মেয়াদী রোগ। দীর্ঘকালীন ডায়াবেটিসের কারনে চোখ, কিডনী ও স্নায়ুতন্ত্রের সমস্যা হতে পারে। অনিয়ন্ত্রিত ডায়াবেটিসের আরেকটি গুরুত্বপূর্ণ জটিলতা হলো যৌন দূর্বলতা। এই সমস্যাটি গুরুত্বপূর্ণ হওয়া সত্ত্বেও দেখা যায় যে ডায়াবেটিস রোগীরা তা বলতে চান না এবং ডাক্তারাও এই ব্যাপারে জিজ্ঞেস করতে স্বাচ্ছন্দ্যবোধ করেন না। এই জন্য ডায়াবেটিস রোগীরা বিভিন্ন জটিলতা সম্পর্কে জানলেও যৌন সমস্যা নিয়ে তারা অজ্ঞ থাকে। এই নিয়ে অনেক সময় দাম্পত্য কলহ এমনকি বিবাহবিচ্ছেদের মত ঘটনা ঘটে থাকে। তাই ডায়াবেটিস রোগীদের এই সমস্যা থাকলে তা নিয়ে খোলামেলা আলোচনা করা উচিৎ। দীর্ঘদিন অনিয়ন্ত্রিত ডায়াবেটিসের কারণে পুরুষদের স্নায়ুর কার্যক্ষমতা হ্রাস পাওয়া, রক্তনালী বন্ধ হয়ে যাওয়া এবং পুরুষ হরমোন ঘাটতিজনিত কারণে এই সমস্যা হয়। তাছাড়া অনেকক্ষেত্রে যৌন দূর্বলতার কারণ খুঁজতে গিয়েও ডায়াবেটিস রোগ সনাক্ত হয়।

ডায়াবেটিসজনিত যৌনসমস্যা পুরুষ রোগীদের বেশী হয়ে থাকে। গবেষণায় দেখা গেছে শতকরা ৫০ ভাগ পুরুষ ডায়াবেটিক রোগী পুরুষাঙ্গের উত্থানজনিত সমস্যায় ভোগে। অনেকক্ষেত্রে বিপরীতমুখী বীর্যস্খলনের মত সমস্যাও হতে পারে। মহিলা ডায়াবেটিক রোগীদের যৌনসমস্যা পুরুষদের মত নয়। কিছুটা ভিন্ন ধরনের। মহিলা রোগীদের যৌন আকর্ষণ অপরিবর্তিত থাকে, কিন্তু শতকরা ৩৫ ভাগ মহিলা চরম তৃপ্তি না আসার সমস্যায় ভোগে থাকে। এই সমস্যা সাধারণত রোগের তীব্রতা, সময়কাল, ঔষধ ও ঔষধের মাত্রা এবং অন্যান্য জটিলতার তীব্রতার উপর নির্ভরশীল নয়। এই সমস্যা সাধারণত ডায়াবেটিসজনিত অবসাদ এবং স্নায়ুবিক দূর্বলতার কারণে হয়ে থাকে। অনেক ক্ষেত্রে অনিয়ন্ত্রিত ডায়াবেটিক মহিলাদের যৌনাঙ্গে ছত্রাকজনিত সমস্যাও থাকতে পারে। কিছুকিছু মহিলা রোগীর যৌনাঙ্গে পিচ্ছিলতা হ্রাস পায়। ডায়াবেটিস রোগীদের যৌন চিকিৎসায় আশানুরুপ ফলাফল পাওয়া যায় না। তাই রক্তের গ্লুকোজের মাত্রা সর্বদা নিয়ন্ত্রনে রাখতে হবে। সময়মত চিকিৎসকের ফলোআপে থাকতে হবে। উচ্চ রক্তচাপ, রক্তের চর্বি, মাইক্রো অ্যালবুমিন নিয়ন্ত্রনে রাখতে হবে। ডায়াবেটিসজনিত স্নায়ুবিক সমস্যা শুরু হওয়ার আগেই প্রতিরোধ করতে হবে। পুরুষদের উত্থানজনিত সমস্যায় সিলডেনাফিল জাতীয় ঔষধ অধিকাংশে কার্যকরী। তাছাড়া বিভিন্ন ধরনের ভ্যাকুয়াম ডিভাইসের মাধ্যমে পুরুষাঙ্গের উত্থান ঘটানো সম্ভব। পুরুষাঙ্গে ইমপ্লান্ট সংযোজন করেও উত্থান ঘটানো যায়। এছাড়া প্যানাভেরিন জাতীয় ঔষধ সূক্ষ্ম সুঁইয়ের মাধ্যমে পুরুষাঙ্গে ঢুকিয়ে প্রায় ৩০মিনিট থেকে ১ ঘন্টা পর্যন্ত পুরুষাঙ্গের উত্থান ঘটানো যায়।
মহিলা ডায়াবেটিক রোগীদের যৌন চিকিৎসা পুরুষদের মত সহজ নয়। রজঃনিবৃত্তির পর্বে ক্লিবানসেরিন জাতীয় ঔষধ যদিও ভালো কাজ করে কিন্তু মাসিক বন্ধের পরে হরমোনজনিত চিকিৎসা অধিক উপকারী। যৌনাঙ্গের সুষ্কতায় বিভিন্ন ধরনের জেল ব্যবহার করা যেতে পারে। মেডিটেসনরিলাকশেসন জাতীয় চিকিৎসা অবসাদগ্রস্থতায় ভালো কাজ করে। ডায়াবেটিস আক্রান্ত দম্পতিকে মানসিকভাবে দৃঢ় হতে হবে। রোগী যদি দুঃচিন্তা, মানসিক অস্থিরতায় থাকে তাহলে সেক্স থেরাপী বিশেষভাবে কার্যকরী।

পরিশেষে, ডায়াবেটিস নিয়ন্ত্রনে নিয়মিত চিকিৎসকের সাথে যোগাযোগ এবং যৌন সমস্যা দেখা দেওয়ার সাথে সাথেই চিকিৎসকের শরনাপন্ন হলে যৌনসমস্যা থেকে মুক্তি ও সুস্থ্য যৌনজীবন উপভোগ করা সম্ভব।

-ডা. অজিত কুমার পাল
এমবিবিএস,এমডি, এমআরসিপিএস(গ্লাসগো)
এফএসিই, এফএসিপি(ইউএসএ)
মেডিসিন, ডায়াবেটিসওহরমোনবিশেষজ্ঞ
সহযোগী অধ্যাপক
ময়নামতি মেডিকেল কলেজ, কুমিল্লা

আর পড়তে পারেন