শুক্রবার, ১৯শে সেপ্টেম্বর, ২০১৯ ইং

ডাবের পানির ৮ জাদুকরী গুণ

আজকের কুমিল্লা ডট কম :
মে ১৫, ২০১৮
news-image

 

ডেস্ক রিপোর্ট :

চৈত্র শুরু হতে না হতেই গরম বাড়তে শুরু করেছে। বাইরে বের হলেই রৌদে তৃষিত হয়ে ওঠে বুক। তাই নির্ভেজাল আর নিরাপদ পানীয় খেতে চাইলে ডাবের বিকল্প নেই। উষ্ণ রৌদ্রস্নাত দিনে এক গ্লাস ডাবের পানি পানের সঙ্গে শরীর-মন চাঙ্গা হয়ে ওঠে। সুমিষ্ট ও তাজা স্বাদের এই উপাদেয় তাপপ্রবাহ থেকে রক্ষা করতে এক নিখুঁত উপায় তৈরি করে। ডাবের পানি ইলেক্ট্রোলাইট এবং চিনি থেকেই অনেক বেশি কাজ করে।

কচি ডাবের পানির আপনার শরীরে ঠিক কি কাজে লাগবে সে সম্পর্কিত একটি প্রতিবেদন প্রকাশ করেছে ভারতীয় সংবাদমাধ্যম এনডিটিভি। আসুন জেনে নিই ডাবের পানি পানের উপকারিতা–

প্রকৃতির অন্ত্রবিদ আপনি কি বদ হজম বা এসিডিটিতে ভুগছেন? উচ্চমাত্রার ফাইবার এবং প্রাকৃতিক এনজাইম সমৃদ্ধ ডাবের পানি আপনার শরীর সুস্থ্য রাখতে সাহায্য করে।  বলা হয়ে থাকে ক্রোহন রোগের মতো আরো গুরুতর অসুস্থতা দূর করতে সক্ষম ডাবের পানি। কে বলে রক্ত পানি থেকে ঘন? ডাবের পানি মানুষের প্লাজমার অনুরূপ বলা হয়। এটি সরাসরি রক্ত ​​প্রবাহে ইনজেকশনের মতো কাজ করে। বলা হয়ে থাকে দ্বিতীয় বিশ্বযুদ্ধের সময় স্যালাইনের বিকল্প হিসেবে ডাবের পানি ব্যবহার করা হয়েছিল। বার্ধক্যরোধী বৈশিষ্ট্য ডাবের সুস্বাদু মিষ্টি এই পানীয়তে রয়েছে সাইটোকিনিন্স।  একে বার্ধক্যরোধী এজেন্ট বলা হয়ে থাকে। এ ছাড়াও ডাবের পানি আপনাকে আরও দীপ্তিমত করতে তুলতে ত্বকের আর্দ্রতা ধরে রাখে। ফল নাকি ডাবের পানি যে কোনো ফলের রসের তুলনায় ডাবের পানিতে বেশি পরিমাণ খনিজ উপাদান রয়েছে। গবেষণায় দেখা গেছে, কোন কোন ফলের রসে হঠাৎ করেই র‌্যাশ দেখা দিতে পারে। ডাবের পানিতে ক্যালরি খুব কম এবং অনেক ফলের রসের চিনির তুলনায়ও কম। ডাবের পানি জিমের প্রশিক্ষক থেকে দূরে রাখে ডাবের পানি বিপাকীয়তায় সাহায্য করে। উচ্চ বিপাকীয় প্রক্রিয়ায় অনেক চর্বি ক্ষয় হয়। অন্য আরেকটি প্লাস পয়েন্ট হলো ডাবের পানিতে রয়েছে খুব অল্প পরিমাণ কার্বোহাইড্রেট। এতে নিজে সম্পূর্ণ আছি মনে হয়।ওজন কমানোর জন্য এটি একটি পারফেক্ট পানীয়। ডাব হৃদয়কে সচল রাখে আপনার কি নিম্ন রক্তচাপ? তাহলে ডবের পানি পানে শান্ত থাকুন। এতে থাকা ম্যাগনেশিয়াম এবং পটাশিয়াম হার্টের ফাংশন ঠিক রাখতে সাহায্য করে। একই সঙ্গে ডাবের পানি হার্ট অ্যাটাক এবং স্টোকের ঝুঁকি কমিয়ে দেয়। ত্বকের জন্য সব ধরণের সিরাম রয়েছে ব্রণ এবং ত্বককে রুক্ষ করার হাত থেকে ডাবের পানি জাদুর মতো কাজ করে। এ ছাড়াও চর্মরোগ প্রতিকারে এটা ব্যবহার হয়ে থাকে। ক্ষত স্থানে সারারাত ডাবের পানি লাগিয়ে রাখতে পারেন। বাড়তি পাওয়া হিসেবে আপনি পাবেন টানটান ও সতেজ ত্বক। স্বাস্থ্যোজ্জ্বল চুলের জন্য ডাবের পানি চুলের বৃদ্ধিতে সাহায্য করে। খুশকি এবং উকুন দূর করে। ডাবের পানি চুলকে আর্দ্র ও উজ্জ্বল করে।