বৃহস্পতিবার, ৫ই ডিসেম্বর, ২০১৯ ইং

‘ট্রাকভর্তি উপঢৌকন’ পাঠালেন ওসি, ফেরত দিলেন প্রতিমন্ত্রী

আজকের কুমিল্লা ডট কম :
জানুয়ারি ১৯, ২০১৯
news-image

 

ডেক্স রিপোর্টঃ

সিলেট-৪ আসনের সংসদ সদস্য এবং প্রবাসী কল্যাণ ও বৈদেশিক কর্মসংস্থান প্রতিমন্ত্রী ইমরান আহমদকে গোয়াইনঘাট থানার ভারপ্রাপ্ত কর্মকর্তা (ওসি) আব্দুল জলিলের পাঠানো ‘উপঢৌকনে’র ব্যাপারে কিছুই জানেন না বলে দাবি করেছেন জেলা পুলিশের ঊর্ধ্বতন কর্মকর্তারা। তবে তারা আবার এ ঘটনা খতিয়ে দেখা হবে বলেও জানিয়েছেন।

গত বুধবার (১৬ জানুয়ারি) রাতে গোয়াইনঘাটে জৈন্তাপুরের শ্রীপুরে প্রতিমন্ত্রী ইমরান আহমদের বাড়িতে ‘ট্রাকভর্তি উপঢৌকন’ পাঠান গোয়াইনঘাট থানার ওসি আব্দুল জলিল। গতকাল বৃহস্পতিবার ঘটনাটি জানাজানি হলে জেলাজুড়ে আলোচনা-সমালোচনা শুরু হয়।

এ ব্যাপারে জানতে চাইলে আজ শুক্রবার (১৮ জানুয়ারি) জেলা পুলিশের অতিরিক্ত পুলিশ সুপার (গণমাধ্যম) মাহবুবুল আলম দাবি করেন, ‘ওসির দেওয়া উপঢৌকনের ব্যাপারে অনেকেই আমার কাছে প্রশ্ন করেছেন। তারা জানতে চেয়েছেন, ঘটনাটি সত্য কিনা। কিন্তু এ বিষয়ে আমি আসলে কিছুই জানি না।’ তবে এ ঘটনার ব্যাপারে খোঁজ-খবর নেওয়া হবে বলেও জানান তিনি।

প্রায় একই কথা জানান জেলা পুলিশের গোয়াইনঘাট সার্কেলের অতিরিক্ত পুলিশ সুপার নজরুল ইসলামও। তিনি দাবি করেন, ‘এ ব্যাপারে আমি কিছুই জানি না।’

কিছুক্ষণ নিরবতার পর তিনি আরও বলেন, ‘শুনেছি, প্রতিমন্ত্রীকে ওসি আব্দুল জলিল উপঢৌকন পাঠিয়েছেন; এরপর প্রতিমন্ত্রী তা ফিরিয়েও দিয়েছেন।’

তিনি বলেন, ‘শুক্রবার ছুটির দিন থাকায় আমি বাইরে রয়েছি। তবে বিষয়টি গুরুত্বসহকারে খতিয়ে দেখা হবে।’

তদন্তে সত্যতা পাওয়া গেলে কী ধরনের পদক্ষেপ নেওয়া হবে –এ প্রশ্নে নজরুল ইসলাম বলেন, ‘তদন্ত যদি হয়, সেটা ঊর্ধ্বতন কর্তৃপক্ষের নির্দেশে হবে। সত্যতা পাওয়া গেলে তারাই সিদ্ধান্ত নেবেন, কী করা হবে।’

এ ব্যাপারে বক্তব্য নেওয়ার জন্য গোয়াইঘাট থানার ওসি আব্দুল জলিলের মোবাইল ফোনে একাধিকবার কল দেওয়া হলেও তিনি তা ধরেননি।

পরে একই থানার ভারপ্রাপ্ত কর্মকর্তা (ওসি–তদন্ত) হিল্লোল রায়ের সঙ্গে যোগাযোগ করা হলে তিনিও দাবি করেন, ‘এ বিষয়ে আমি কিছুই জানি না।’

এ ব্যাপারে প্রবাসী কল্যাণ ও বৈদেশিক কর্মসংস্থান প্রতিমন্ত্রী ইমরান আহমদ বলেন, ‘যা হওয়ার হয়েছে। এ নিয়ে আর লেখালেখি করার কী দরকার। এ নিয়ে সংবাদও হয়েছে।’ এর বাইরে তিনি আর কোনও মন্তব্য করতে রাজি হননি।

উপজেলা আওয়ামী লীগের একাধিক নেতা জানান, ‘ট্রাকভর্তি উপঢৌকনের মধ্যে মাছ ও ফলমূলসহ বিভিন্ন খাদ্যসামগ্রী ছিল’। এ ঘটনায় ওসি আব্দুল জলিলকে নিয়ে সমালোচনা হলেও সবাই প্রতিমন্ত্রী ইমরান আহমদের প্রশংসা করছেন। তারা দাবি করেন, এ ঘটনা একটা দৃষ্টান্ত হয়ে থাকবে।

উপজেলা আওয়ামী লীগের নেতারা আরও জানান, গত বুধবার রাতে প্রতিমন্ত্রী ইমরান আহমদের বাসভবনে ‘উপঢৌকন’ পাঠান ওসি আব্দুল জলিল। এ ব্যাপারে কিছুই জানতেন না প্রতিমন্ত্রী। পরদিন (বৃহস্পতিবার) সকালে ঘুম থেকে উঠে ট্রাক দেখে এ নিয়ে তার নিরাপত্তার দায়িত্বে থাকা আইন-শৃঙ্খলা বাহিনীর সদস্যদের প্রশ্ন করেন তিনি। তারা জানান, গোয়াইনঘাট থানার ওসি তাকে এই ‘উপহার’ পাঠিয়েছেন। এটা শুনে ক্ষুব্ধ হন প্রতিমন্ত্রী এবং ওই ট্রাক ফেরত পাঠানোর নির্দেশ দেন।

গোয়াইঘাট উপজেলা আওয়ামী লীগের সাধারণ সম্পাদক গোলাম কিবরিয়া হেলাল বলেন, ‘খোঁজ নিয়ে জেনেছি, প্রতিমন্ত্রী ইমরান আহমদকে ট্রাকে করে উপঢৌকন পাঠিয়েছিলেন গোয়াইঘাট থানার ওসি। পরে প্রতিমন্ত্রী তা ফেরত দিয়েছেন।’

সূত্রঃ বাংলা ট্রিবিউন ।

আর পড়তে পারেন