বৃহস্পতিবার, ১৩ই নভেম্বর, ২০১৯ ইং

জোটের হিসাব নিকাশ : নির্বাচনী তৎপরতার গতিবিধি

আজকের কুমিল্লা ডট কম :
জুলাই ১৮, ২০১৮
news-image

 

ডেস্ক রিপোর্ট :

তৃণমূলে দলীয় বিশৃঙ্খলা আর জোটের দ্বন্দ্বে নাকাল বিএনপি। রাসিক নির্বাচনে প্রধান শরিক জামায়াতকে পাশে পাচ্ছে না বিএনপি। রাসিকের ১৪টি সাধারণ ও ২টি সংরক্ষিত ওয়ার্ডে কাউন্সিলর প্রার্থী দিয়েছে জামায়াতে ইসলামী। স্থানীয় জামায়াতের নেতাকর্মীরা তাদের কাউন্সিলর প্রার্থীদের পক্ষে মাঠে নামলেও কোনোভাবেই বিএনপির মেয়র প্রার্থী বুলবুলের হয়ে মাঠে নামতে চাইছেন না বলে জানিয়েছেন দলটির মহানগর নায়েবে আমির অ্যাডভোকেট আবু ইউসুফ সেলিম।

এখন পর্যন্ত বুলবুলের পক্ষে মাঠে নামেনি জামায়াত। তবে জামায়াতের মেয়র প্রার্থী দেওয়ার কথা থাকলেও শেষ পর্যন্ত দলটি আর প্রার্থী দেয়নি। আবার এখন পর্যন্ত সমর্থনও জানায়নি বিএনপির প্রার্থীকে। জোটের মারপ্যাঁচে তাই অনেকটাই দিশেহারা তাদের প্রার্থীরা। কেন্দ্র থেকে বুলবুলকে ২০ দলীয় জোটের প্রার্থী ঘোষণা করা হলেও স্থানীয় জামায়াত বলছে, ‘বিএনপি আমাদের ওয়ার্ড কাউন্সিলরদের সমর্থন দেয়নি। আমরাও স্থানীয়ভাবে বুলবুলকে আমাদের সমর্থন জানাইনি। সে জন্য আমরা মাঠেও নামিনি। ফলে বিএনপি প্রার্থী মোসাদ্দেক হোসেন বুলবুলের আশপাশে জামায়াতের কোনো নেতাকর্মীকে দেখা যাচ্ছে না’। তবে বুলবুলের দাবি, পুলিশের ভয়েই তারা নির্বাচনী প্রচারে আসছে না।

রাজশাহী সিটি নির্বাচনের সময় ঘনিয়ে আসার একেবারেই শেষ মুহূর্তে রাজশাহীতে দলীয় মেয়র প্রার্থীর নাম ঘোষণা করে বিএনপি। কিন্তু অনেক আগেই এখানে প্রার্থী ঘোষণা করে জামায়াত। নির্বাচন কমিশনে নিবন্ধন হারানো স্বাধীনতাবিরোধী এই দলটি তাদের মহানগর কমিটির সেক্রেটারি সিদ্দিক হোসেনকে মেয়র প্রার্থী ঘোষণা করে। তার নির্বাচনে অংশ নেওয়া নিয়ে দলের নেতারা বৈঠকে বসলে পুলিশ সেখানে অভিযান চালায়। গ্রেপ্তার হন দলটির কেন্দ্রীয় কমিটির ভারপ্রাপ্ত আমির অধ্যাপক মুজিবুর রহমান ও রাজশাহী মহানগর সেক্রেটারি সিদ্দিক হোসেনসহ ১২ নেতা। সেই থেকে সিদ্দিক হোসেন কারাগারে থাকলেও থেমে থাকেনি নির্বাচনের প্রস্তুতি। কিন্তু কেন্দ্রীয় কমিটির নির্দেশে শেষ পর্যন্ত সিদ্দিকের মনোনয়নপত্রই তোলা হয়নি।

অন্যদিকে ১৪ দলীয় জোটের নেতাকর্মীদের স্বতঃস্ফূর্ত সমর্থন নিয়ে নির্বাচনী প্রচারণায় নগরীতে ব্যাপক সাড়া জাগিয়েছেন আওয়ামী লীগের মেয়র প্রার্থী এ এইচ এম খায়রুজ্জামান লিটন। ইতোমধ্যে লিটনের পক্ষে বিভিন্ন মহল্লার বাসিন্দা, শ্রেণিপেশার মানুষের মধ্যে গণজোয়ার সৃষ্টি হয়েছে। রাজশাহীর উন্নয়নের স্বার্থে বিভিন্ন শ্রেণিপেশার মানুষের পাশাপাশি বিএনপি সহ ২০ দলীয় জোটের নেতাকর্মী গোপনে আওয়ামী লীগের মেয়র প্রার্থী লিটনের সাথে যোগাযোগ রাখছেন বলে একাধিক সূত্রে জানা গেছে। বিএনপি এবং জামায়াতের দ্বন্দ্ব অনেকটাই এগিয়ে দিচ্ছে আওয়ামী লীগকে।

বিএনপিকে নির্বাচনের দৌড়ে টিকে থাকতে হলে সবার দলীয় শৃঙ্খলা আর জোটের সুষম বণ্টন নিশ্চিত করতে হবে। রাসিক বাসীর পাশাপাশি দেশবাসীও আগামী দিনের বিএনপির নির্বাচনী তৎপরতা পর্যবেক্ষণে রাখবে।

আর পড়তে পারেন