শুক্রবার, ২২শে নভেম্বর, ২০১৯ ইং

চৌদ্দগ্রামে জিপিএ ৫ প্রাপ্তিতে শীর্ষে মিয়াবাজার কলেজ, গড় পাশে বগৈড় কলেজ

আজকের কুমিল্লা ডট কম :
জুলাই ১৯, ২০১৮
news-image

স্টাফ রিপোর্টার :

সদ্য ঘোষিত কুমিল্লা বোর্ডের ফলাফলে চৌদ্দগ্রামের ১১টি কলেজ ও ২টি কারিগরী কলেজের ফলাফলে গড় পাশের হার ৭৭.৯১%। এবার শতভাগ পাশের কৃতিত্ব অর্জন করেছে চৌদ্দগ্রামের শ্রীপুর ইউনিয়নের বগৈড় গার্লস হাইস্কুল এন্ড কলেজ।

এ প্রতিষ্ঠান থেকে ৩০জন শিক্ষার্থী অংশ নিয়ে সবাই পাশ করে। জিপিএ ৫ প্রাপ্তিতে ৭টি জিপিএ নিয়ে শীর্ষে রয়েছে মিয়াবাজার কলেজ। প্রতিষ্ঠানটি থেকে ৩৬৭ জন শিক্ষার্থী এইচএসসি পরিক্ষায় অংশ নেয়। এর মধ্যে পাশ করেছে ৩৫৮ জন, অকৃতকার্য ৯জন, পাশের হার ৯৭.৫৫%। ঘোষিত ফলাফলে ৩৮.৯৭% পাশের হার নিয়ে গতবারের ন্যায় এবারো উপজেলায় সর্বনি¤œ ফলাফল অর্জন করেছে চিওড়া সরকারী কলেজ। খারাপ ফলাফলে ৪৯.৪২% পাশের হার নিয়ে ২য় স্থানে রয়েছে চৌদ্দগ্রাম সরকারী কলেজ।

এছাড়া ৯৬.৫৫% পাশের হার নিয়ে শতকরা পাশে ৩য় স্থানে রয়েছে মিয়াবাজার বিএম কলেজ। এর পরের স্থানগুলোতে রয়েছে ; ৯৬.৫৫% নিয়ে ধর্মপুর নাযিম আলী হাইস্কুল এন্ড কলেজ, ৯২.৯৬% নিয়ে চৌদ্দগ্রাম মডেল কলেজ, একই পাশের হার নিয়ে কাশিনগর কলেজ, ৯১.৯১% পাশের হার নিয়ে গুনবতী কলেজ, ৮৫.০১% নিয়ে এর পরের স্থানে মুন্সীরহাট কলেজ, ৮৪.৭৭% নিয়ে নুরমিয়া ডিগ্রী কলেজ, ৭৭.৭৭% নিয়ে চৌদ্দগ্রাম ফয়জুন্নেছা মহিলা মাদ্রাসা (বিএম) শাখা, এবং ৭৪.৭৮% নিয়ে বিজয়করা স্কুল এন্ড কলেজ।
মাদ্রাসা বোর্ডের অধীনে চৌদ্দগ্রাম উপজেলার ২০টি শিক্ষা প্রতিষ্ঠান অংশ নেয়। শতকরা পাশের হার- ৯৭.১৫%। এর মধ্যে শতভাগ পাশের কৃতিত্ব ও উপজেলায় একমাত্র জিপিএ ৫ পেয়ে শীর্ষস্থানে রয়েছে মরকটা ইসলামিয়া আলিম মাদ্রাসা।

উপজেলা মাধ্যমিক শিক্ষা অফিসার আজহারুল ইসলাম ভূঁইয়া জানান, এ বছর চৌদ্দগ্রামের ১১টি কলেজ থেকে ২৮৫৩ জন শিক্ষার্থী অংশ নেয়। এর মধ্যে কৃতকার্য হয় ২২২৩জন শিক্ষার্থী। মাদ্রাসা বোর্ডের অধীনে ২০টি মাদ্রাসার ৬৬২ জন পরিক্ষার্থী অংশ নেয়। এর মধ্যে কৃতকার্য হয় ৫২৪জন। এছাড়া কারিগরী বোর্ডের অধীনে ২টি প্রতিষ্ঠান থেকে ৪১জন পরিক্ষার্থী অংশ নেয়। এর মধ্যে কৃতকার্য হয় ৩৭জন। পাশের হার- ৯০.২৪%।
গতবারের তুলনায় এবারের ফলাফল কিছুটা ভালো হয়েছে।

 

 

আর পড়তে পারেন