মঙ্গলবার, ১৯শে নভেম্বর, ২০১৯ ইং

কুমিল্লা নারী শিশু নির্যাতন ও ধর্ষণ ভয়াবহ রূপধারণ করেছে

আজকের কুমিল্লা ডট কম :
আগস্ট ৩, ২০১৭
news-image

 

সেলিম সজীবঃ

কুমিল্লায় ধর্ষণের ঘটনা শুধু বাড়াই নয়, তা ভয়াবহ আকার ধারণ করেছে। কুমিল্লায় নারীর প্রতি সহিংসতা ভয়াবহরূপ ধারণ করেছে। কুমিল্লায় নারী ও শিশু ধর্ষণের বর্তমান চিত্র আতঙ্কিত করে তুলেছে সাধারণ মানুষকে। প্রায় প্রতিদিনই কোথাও না কোথাও তরুণী, কিশোরী বা শিশুকে ধর্ষণ করা হচ্ছে। কোনো কোনো এলাকায় রক্ষক ভক্ষকের ভূমিকা পালন করছে।  উল্টো আরো নির্যাতনের শিকার হচ্ছে ভুক্তভোগীরা। আবার ক্ষমতা বা প্রভাবশালীদের অপকর্মের কথা বলতে অনেক নির্যাতিত পরিবার সাহস পাচ্ছে না। সমাজের বিকৃত মানসিকতার একশ্রেণির মানুষের যৌন লালসার শিকারে পরিণত হয়ে চলেছে নারী ও শিশুরা। এখন শুধু ধর্ষণ করেই অপরাধীরা থামছে না, কুমিল্লায় মাত্র ৪ বছরের একটি শিশুকে খাবার দেয়ার লোভ দেখিয়ে ধর্ষণ এবং ধর্ষণের পর হত্যা করার ঘটনাটি জেনে আমাদের নির্বাক হওয়া ছাড়া উপায় থাকে না। ধর্ষণ সামাজিকভাবে একটি চরম ঘৃণ্য কাজ হিসেবে চিহ্নিত, ধর্মীয় দৃষ্টিকোণ থেকেও এটি পাপকাজ, অন্যদিকে দেশের আইনেও ধর্ষণ শাস্তিযোগ্য অপরাধ। এত বাধা থাকার পরও কেন ধর্ষণের বীভৎসতা বেড়েই চলেছে এটাই প্রশ্ন। বলা হয়ে থাকে, আইনের যথাযথ প্রয়োগ হচ্ছে না। ভিকটিমরা দুর্বল বলে অপরাধীরা বিচার ও শাস্তি এড়াতে সক্ষম হয়। শুধু শিশু নয় বরং যে কোনো বয়সের নারীকেই পারিবারিক, সামাজিক ও রাষ্ট্রীয়ভাবে সর্বোচ্চ নিরাপত্তা দিতে ধর্ষণ সংক্রান্ত আইনটির কার্যকারিতা নিশ্চিত করতে হবে। ধর্ষণ রোধে রাষ্ট্র যদি কঠোরতা না দেখায় তবে সমাজে ক্ষতের গভীরতা বাড়তে থাকবে। ধর্ষকদের বিরুদ্ধে রাষ্ট্রকে প্রধান ভূমিকা পালন করতে হবে। অন্যদিকে ধর্মীয় মূল্যবোধ-সামাজিক নৈতিকতাও ধর্ষণের মতো বিকৃতি থেকে মানুষকে নিবৃত্ত রাখতে পারছে না। এসব নিয়েও ভাবা দরকার।