শনিবার, ১৬ই নভেম্বর, ২০১৯ ইং

কুমিল্লায় মামলার রায় পাইয়ে দেওয়ার প্রলোভন দেখিয়ে গণধর্ষণ

আজকের কুমিল্লা ডট কম :
জানুয়ারি ৯, ২০১৯
news-image

 

স্টাফ রিপোর্টারঃ
কুমিল্লায় নারী নির্যাতনের মামলার রায় পাইয়ে দেওয়ার প্রলোভন দেখিয়ে গণধর্ষণের শিকার হয়েছেন এক নারী।ধর্ষণের ঘটনায় বুধবার (৯ জানুয়ারি) দুপুরে মামলা দায়েরের পর আনিছুর রহমান নামে এক আইনজীবীর সহকারী ও আরেক আইনজীবীর বাড়ির দারোয়ান লিটন বিশ্বাসকে গ্রেফতার করেছে পুলিশ।

জেলার সদর দক্ষিণ মডেল থানার অধীন লালমাই উপজেলার শানিচোঁ গ্রামে এক আইনজীবীর নির্জন বাড়িতে এই ধর্ষণের ঘটনা ঘটে।

পুলিশ ও মামলার অভিযোগ থেকে জানা যায়, জেলার দেবিদ্বার উপজেলার চাঁনপুর গ্রামের চার সন্তানের জননী তার স্বামী আবদুল মালেকের বিরুদ্ধে আদালতে নারী নির্যাতনের মামলা দায়ের করেন। এ মামলার রায় পাইয়ে দেওয়ার প্রলোভন দেখিয়ে কুমিল্লার আদালতের আইনজীবী সহকারী জহিরুল ইসলাম (৩৫) ওই নারীকে গত ২৮ ডিসেম্বর (শুক্রবার) শানিচোঁ গ্রামের এক আইনজীবীর নির্জন বাড়িতে নিয়ে আসে। সেখানে তাকে দুপুর থেকে সন্ধ্যা পর্যন্ত আটকে রেখে বাড়ির দারোয়ান লিটন বিশ্বাস (৩৮), আরেক আইনজীবী সহকারী আনিছুর রহমান (৩৫) মিলে পালাক্রমে ধর্ষণ করে।

এ ঘটনায় ওই নারী বিভিন্ন স্থানে প্রতিকার চেয়ে বিচার না পেয়ে নিরুপায় হয়ে এবং প্রভাবশালী আসামিদের হুমকির মুখে আদালতে মামলা দায়ের করতে ব্যর্থ হন। পরে বুধবার দুপুরে সদর দক্ষিণ মডেল থানায় ওই তিনজনকে আসামি করে মামলা দায়ের করেন।

সদর দক্ষিণ মডেল থানার এসআই খাদেমুল বাহার জানান, ‘এই মামলার এজাহারভুক্ত আসামি আইনজীবী সহকারী আনিছুর রহমান ও বাড়ির দারোয়ান লিটন বিশ্বাসকে গ্রেপ্তার করা হয়েছে। পরবর্তীতে তাদের বিকালে আদালতের মাধ্যমে জেলহাজতে প্রেরণ করা হয়েছে। অপর আসামি জহিরুল ইসলামকে গ্রেপ্তারের চেষ্টা অব্যাহত আছে’।

আর পড়তে পারেন