বুধবার, ২১শে অক্টোবর, ২০২০ খ্রিস্টাব্দ

কুমিল্লায় প্রবাসী মোক্তার হত্যা মামলা তুলে নিতে গভীর রাতে নিহতের স্ত্রী-সন্তানের উপর হামলা

আজকের কুমিল্লা ডট কম :
সেপ্টেম্বর ২০, ২০২০
news-image

 

স্টাফ রিপোর্টারঃ

কুমিল্লা সদর উপজেলার আনন্দপুর গ্রামে চাঁদা না দেওয়ায় সন্ত্রাসী “কালা বাহিনী”র হাতে নিহত প্রবাসী মোক্তার হোসেন হত্যা মামলা তুলে নিতে মামলার বাদী নিহতের স্ত্রী ও সন্তানদের উপর হামলা চালিয়েছে আসামীরা। এসময় স্বর্ণালংকার ও টাকা পয়সা লুট করে।

শনিবার বিকালে মুক্তার হোসেনের খুনি বিচার ও পরিবারের নিরাপত্তার চেয়ে ‘কালা বাহিনী’র বিভিন্ন নির্যাতনের চিত্র সাংবাদিকদের নিকট তুলে ধরেন নিহতের স্ত্রী শিউলি আক্তার। এ সময় নিহতের ভাই ইমাম হোসেন ফরাজী, খোকন ফরাজী, স্থানীয় ইউপি মেম্বার আবদুল মান্নানসহ পরিবারের সদস্যরা উপস্থিত ছিলেন। বৃহস্পতিবার গভীর রাতে হামলা- লুটের ঘটনা ঘটে। পরদিন শুক্রবার ১১ জনকে আসামী করে কোতয়ালী মডেল থানায় অভিযোগ দায়ের করা হয়েছে।

নিহত মোক্তার হোসেনের স্ত্রী শিউলি আক্তার জানান, পিতা হারা ৩ সন্তানকে নিয়ে আতংকে দিন কাটাচ্ছেন তিনি। শিশু সন্তানরা এখনো বাবাকে কুপিয়া হত্যার দৃশ্য মনে করে চিৎকার করে উঠে। অপরদিকে আসামী ও তাদের স্বজনরা মামলা তুলে নিতে প্রতিনিয়ত হুমকী দিচ্ছে, হামলা করেছে। তিনি পরিবারের নিরাপত্তা ও স্বামী হত্যাকারীদের দৃষ্টান্তমূলক শাস্তি দাবী করছেন।

জানা যায়, কুমিল্লার কালির বাজার এলাকার আনন্দপুর গ্রামের মৃত আবদুল ওহাব ফরাজীর প্রবাসী পুত্ররা নতুন বাড়ি নির্মাণ করতে গেলে দেড় লাখ টাকা ‘চাঁদা দাবি’ করে স্থানীয় সন্ত্রাসী ‘কালা’ বাহিনীর লোকজন। চাঁদা না পেয়ে গত ৩০ জানুয়ারি আবদুল ওহাব ফরাজীর পুত্র সৌদি প্রবাসী মোক্তার হোসেন ফরাজীকে পিটিয়ে ও কুপিয়ে হত্যা করা হয়। হামলায় আহত হয় অপর দুই ভাই ইমাম হোসেন ফরাজী ও খোকন ফরাজী। প্রকাশ্য দিবালোকে বর্বরোচিত এ ঘটনায় নিহতের স্ত্রী শিউলী আক্তার বাদী হয়ে ১১ জনের বিরুদ্ধে কোতয়ালী মডেল থানায় মামলা দায়ের করেন। পরে মামলাটির অধিকতর তদন্তে সিআইডিতে হস্তান্তর করা হয়। সিআইডি মামলার ১১ আসামীর মধ্যে ৭ জনকে গ্রেফতার হয়েছে। এদের মধ্যে ৩ জন আদালতে স্বীকারোক্তিমূলক জবানবন্ধী প্রদান করেছে। গ্রেফতারকৃতদের মধ্য জামিনে রয়েছেন ৩ জন আর বাকী ৪ জন পলাতক রয়েছেন।

 

আর পড়তে পারেন