বৃহস্পতিবার, ১৩ই নভেম্বর, ২০১৯ ইং

কুমিল্লায় ছাত্রলীগ সাবেক নেতা দেলোয়ার হত্যার ঘটনায় মামলা

আজকের কুমিল্লা ডট কম :
নভেম্বর ২৯, ২০১৮
news-image

 

স্টাফ রিপোর্টারঃ
কুমিল্লা (দক্ষিণ) জেলা ছাত্রলীগের সাবেক সাংগঠনিক সম্পাদক মো. দেলোয়ার হোসেন হত্যাকাণ্ডের ঘটনায় মামলা হয়েছে।

কুমিল্লার সদর দক্ষিণ থানায় নিহতের বড় ভাই মো.শাহাদাত হোসেন নয়ন বাদী হয়ে মামলা দায়ের করেন।

মামলায় সামবকসি (ভল্লবপুর) গ্রামের আবদুর রাজ্জাকের ছেলে রেজাউল করিম (৩৫) ও আবুল কালামের ছেলে কাউছারসহ (২৮) অজ্ঞাতনামা একাধিক ব্যক্তিকে আসামি করা হয়।

বুধবার সন্ধ্যায় মামলার বিষয়টি নিশ্চিত করেন কুমিল্লা সদর দক্ষিন থানার ওসি মো. মামুন-অর রশিদ।

পুলিশ সূত্র জানায়, নিহত দেলোয়ার হোসেন ও অভিযুক্ত রেজাউল একই এলাকার বাসিন্দা। দেলোয়ারের রাজনৈতিক প্রতিপক্ষের সাথে রেজাউলের সখ্যতা রয়েছে। নিহত দেলোয়ারের সঙ্গে ওঠাবসা করা একাধিক দলীয় নেতা ও কর্মী জানিয়েছেন, কুমিল্লা সিটি নির্বাচনের সময় থেকেই রেজাউল তাকে হত্যা করতে পারে, এমন কথা প্রকাশ্যে বলে বেড়াতেন দেলোয়ার। এমনকি মৃত্যুর দু’দিন আগেও একই আশঙ্কা প্রকাশ করেছেন তিনি। দেলোয়ার আওয়ামী লীগ সমর্থিত কাউন্সিলর প্রার্থী হিসেবে বিগত সিটি নির্বাচনে ২৬ ওয়ার্ডে কাউন্সিলর পদে প্রতিদ্বন্দ্বিতা করেন। ওই ওয়ার্ডে আওয়ামী লীগের বিদ্রোহী প্রার্থী হিসেবে আব্দুস সাত্তার জয়ী হন। দু’জনই একসময় ছাত্রলীগের রাজনীতিতে সক্রিয় ছিলেন।

কুমিল্লা সদর দক্ষিণ থানার ওসি মো. মামুন-অর রশিদ বলেন, ছাত্রলীগের সাবেক সাংগঠনিক সম্পাদক মো. দেলোয়ার হত্যার ঘটনায় মঙ্গলবার বিকেলে একটি মামলা হয়েছে।

তিনি বলেন, সামাজিক ও রাজনৈতিক প্রতিহিংসা কারণে বিভিন্নজনের সাথে দেলোয়ারের মনোমানিল্য ও বিরোধ ছিল বলে তিনি মামলায় উল্লেখ করেন। সহকর্মী ও এলাকাবাসীরও ধারণা এসব বিরোধের জের ধরে দেলোয়ারকে খুন করা হয়েছে।
উল্লেখ্য, গত সোমবার রাতে নিজ বাড়ির কাছাকাছি সামবকসি (ভল্লবপুর) সরকারি প্রাথমিক বিদ্যালয়ে পেছনে রাস্তার উপর দুর্বৃত্তরা মোটরসাইকেল যোগে এসে ছাত্রলীগ নেতা দেলোয়ার হোসেনকে কাছ থেকে মাথায় গুলি করে পালিয়ে যায়। এ সময় স্থানীয়রা গুলিবিদ্ধ দেলোয়ারকে আহত অবস্থায় কুমিল্লা মেডিকেল কলেজ হাসপাতালে নিয়ে যায়। কর্তব্যরত চিকিৎসক তাকে মৃত ঘোষণা করে।

আর পড়তে পারেন