রবিবার, ৭ই জুন, ২০২০ ইং

কুমিল্লায় করোনার জন্য মহানগর আ’ লীগ কার্যালয়, স্টেডিয়াম ও জিমনেসিয়াম ব্যবহারের সিদ্ধান্ত

আজকের কুমিল্লা ডট কম :
মার্চ ২৯, ২০২০
news-image

 

আশিকুর রহমান আশিকঃ

মহানগর আওয়ামীলীগের নব নির্মিত অফিসটির উদ্বোধন অনুষ্ঠান স্থগিত করে দেশের সার্বিক  পরিস্থিতি বিবেচনা করে কুমিল্লা মহানগর আওয়ামীলীগ অফিসটিকে কোয়ারেন্টাইন হাউজ হিসেবে চিকিৎসা সেবার সিদ্ধান্ত দিয়েছেন কুমিল্লা সদর আসনের সংসদ সদস্য ও মহানগরের আওয়ামীলীগের সভাপতি বীর মুক্তিযোদ্ধা আ.ক.ম বাহাউদ্দিন বাহার। দেশের সার্বিক পরিস্থিতি উন্নয়ন হলে পরবর্তীতে নব নির্মিত ভবনটি উদ্বোধন করবেন প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনা।

কুমিল্লা সদর আসনের সংসদ সদস্য ও মহানগরের আওয়ামীলীগের সভাপতি বীর মুক্তিযোদ্ধা আ.ক.ম বাহাউদ্দিন বাহার ভিআইপি ১৭ টি বেডসহ কোয়ারেন্টাইন হাউজের জন্য পুরো ভবনের দায়িত্ব বুঝিয়ে দেন সিভিল সার্জনের নিকট।

এমপি বাহার কুমিল্লার জনগনের সার্বিক সহযোগীতায়  মাঠে নেমে চালিয়ে যাচ্ছেন সচেতনতামূলক কার্যক্রম। করোনা ভাইরাস প্রতিরোধ ও সংক্রমন প্রতিরোধে জরুরী বৈঠকও সেরেছেন কুমিল্লা সদর আসনের সংসদ সদস্য আ ক ম বাহাউদ্দিন বাহার।

শনিবার সকালে কুমিল্লা সার্কিট হাউজে কুমিল্লা জেলা স্বাস্থ্য বিভাগ, জেলা প্রশাসন, জেলা পুলিশ প্রশাসন, বিএমএ, স্বাচিপ ও সংশ্লিষ্ট কর্মকর্তারা জরুরি বৈঠকে উপস্থিত ছিলেন। এ জরুরি বৈঠকে কুমিল্লায় করোনা ভাইরাস প্রতিরোধ ও সংক্রমিত হলে চিকিৎসা ব্যবস্থা, চিকিৎসার স্থান এবং এ বৈঠকে করোনাভাইরাস মোকাবিলায় পূর্ব প্রস্তুতি হিসেবে নজিরবিহীন সিদ্ধান্ত ও ব্যাপক প্রস্তুতি গ্রহণ করা হয়েছে।

এখন পর্যন্ত কুমিল্লায় করোনাভাইরাস আক্রান্ত রোগী সনাক্ত হয়নি, তারপরও এ ভাইরাস প্রতিরোধে পূর্ব থেকে সবকিছু প্রস্তুত রাখতে এ বৈঠক করেন এমপি বাহার। চিকিৎসক ও সকলে বলেছেন এ বৈঠক এবং সিদ্ধান্ত অবশ্যই কুমিল্লাকে করোনা ভাইরাস থেকে আমরা সকলে মিলে মুক্ত রাখতে পারবো।

বৈঠকে জটিল রোগীদের জন্য আলেখার চরের ফরটিজ এফসি হসপিটাল এর আইসিইউ প্রস্তুত রাখার সিদ্ধান্ত হয়। সাথে কুমিল্লার মুন, সেন্ট্রাল মেডিকেল, সিডি প্যাথ হাসপাতালের আইসিইউও প্রয়োজনে ব্যবহার করা হবে। রোগী এবং ডাক্তারদের আইসোলেশন এর প্রয়োজন হলে সংসদ সদস্য আ ক ম বাহাউদ্দিন বাহার আধুনিক মানের কুমিল্লা মহানগর আওয়ামী লীগ কার্যালয় ব্যবহারের সিদ্ধান্ত দেন। এরপরও জরুরি প্রয়োজনে কুমিল্লা শহীদ ধীরেন্দ্রনাথ দত্ত স্টেডিয়াম ও জিমনেসিয়াম ব্যবহারের সিদ্ধান্ত হয়।

কুমিল্লা সদর আসনের সংসদ সদস্য ও মহানগর আওয়ামীলীগের সভাপতি আ.ক.ম বাহাউদ্দিন বাহার এর সভাপতিত্বে জরুরী বৈঠক কুমিল্লা জেলা প্রশাসক আবুল ফজল মীর, কুমিল্লা মেডিকেল কলেজ এর পরিচালক ডা. মজিবুর রহমান, কুমিল্লা মেডিকেল কলেজের অধ্যক্ষ অধ্যাপক প্রফেসর মোঃ মোস্তফা কামাল, কুমিল্লা সিভিল সার্জন ডা. নিয়াতুজ্জামান, পুলিশ সুপার সৈয়দ নুরুল ইসলাম, বিএমএর সভাপতি ডা. বাকী আনিস, বিএমএর সাধারণ সম্পাদক ডা. আতাউর রহমান জসিম, স্বাধীনতা চিকিৎসক পরিষদের সাধারণ সম্পাদক ডা. মোরশেদুল আলম, কুমিল্লা মেডিকেল কলেজ হাসপাতালের ডাক্তার সোহেল, ডেপুটি সিভিল সার্জন ডা. শাহাদৎ হোসেনসহ কুমিল্লা জেলা স্বাস্থ্য, প্রশাসন ও পুলিশ বিভাগের উর্দ্ধতন কর্মকর্তাবৃন্দ উপস্থিত ছিলেন।

কুমিল্লা মেডিকেল কলেজ এর পরিচালক ডা. মজিবুর রহমান বলেন, সকলেই বাড়িতে থাকবেন, প্রয়োজন হলে হট লাইনে যে নাম্বার দেয়া রয়েছে সেখানে যোগাযোগ করবেন। আমরা চিকিৎসা দিব। তিনি জানান, কাউকে জরুরী চিকিৎসা দিতে হলে আমরা বাড়িতে গিয়ে দিয়ে আসবো, এবং যদি মনে হয় কাউকে হাসপাতাল বা আইসিইউতে নিতে হবে রোগীর অবস্থা দেখে ব্যবস্থা নিব।
করেনটাইনের বিষয়ে সিভিল সার্জন ডা. নিয়াতুজ্জামান বলেন, ১০০ শয্যা হাসপাতাল প্রস্তুত রয়েছে। এছাড়াও প্রত্যেক উপজেলায় ২-৪ টি শয্যার হাসপাতাল এর ব্যবস্থা রয়েছে।

কুমিল্লা পুলিশ সুপার সৈয়দ নুরুল ইসলাম জানান, করোনা ভাইরাস মোকাবেলায় কুমিল্লার জনগণ পাশে থেকে আইন শৃঙ্খলা নিয়ন্ত্রণে মাঠে কাজ করবে কুমিল্লা জেলা পুলিশ।

জেলা প্রশাসক আবুল ফজল মীর জানান, কুমিল্লাতে খাদ্য এবং সকল প্রয়োজনীয় পণ্যের ঘাটতি নেই, আমাদের পর্যাপ্ত মজুদ রয়েছে। এদিকে কারো খাদ্য ও প্রয়োজনীয় কিছুর জন্য আমাদের জানালে আমরা তার ব্যবস্থা নিব ।

জরুরী বৈঠক শেষে এমপি বাহার জানান, আমরা প্রস্তুত আছি। এখনো কুমিল্লায় করোনাভাইরাস আক্রান্ত রোগী নেই, তারপরও পূর্ব প্রস্তুতি হিসেবে আমরা হাসপাতাল, ডাক্তারসহ সব কিছু প্রস্তুত রাখছি। এমপি বাহার বলেন, ভয়ের কিছু নাই । সকলে ঘরে থাকুন নিরাপদ থাকুন। কুমিল্লার সবগুলো প্রাইভেটহাসপাতালের চিকিৎসকদের সাথে টেলিকনফারেন্সের ব্যবস্থা করা হয়েছে।
সভায় আলোচনা করেনটাইন হাউজে যাবতীয় মেডিকেল সেবায় সহযোগীতায় প্রস্তুত রাখার জন্য তিনি কুমিল্লা মেডিকেল কলেজ হাসপাতালের পরিচালক ও সিভিল সার্জনকে অনুরোধ করেন। এর বাহিরে কভিট-১৯ আই.সি.ও সাপোর্ট রোগীদের জন্য কুমিল্লার ৪০ টি হাসপাতাল যেখানে সকল প্রকার আধুনিক সেবায় সকল প্রকার সুযোগ-সুবিধার প্রস্তুতি রয়েছে। সেসব হাসপাতালগুলোকে করোনা রোগীদের সর্বোচ্চ সেবা প্রদানের ব্যবস্থা নেওয়া হয়েছে।

সিভিল সার্জন এবয় কুমিল্লা মেডিকেল কলেজ হাসপাতালের ডাইরেক্টর সবাইকে অবহিত করেন যে ১০ টি মেডিকেল টিম প্রস্তুত থাকবে। সবাই আরো সিদ্ধান্ত হয় কুমিল্লা বি.এম.এ স্বাচিপ এর নেতৃত্বে আরো ৮-১০ টি মেডিকেল টিম জরুরী সেবা দেওয়ার জন্য তৈরি থাকবে।

কুমিল্লায় যত প্রাইভেট মেডিকেল কলেজ হাসপাতাল রয়েছে সব গুলো প্রাইভেট হাসপাতাল গুলোতে হট লাইনের ব্যবস্থা নেওয়া হবে। অনলাইন এর মাধ্যমে টেলি-কনফারেন্সেরে সাহায্যে চিকিৎসা সেবায় রোগীরা ডাক্তারদের সাথে যোগাযোগ করতে পারবেন।

সভা শেষে এমপি বাহার, জেলা প্রশাসক, পুলিশ সুপার, সিভিল সার্জন সহ ‘এএফসি হেলথ ফরটিস হার্ট ইন্সটিটিউট’ পরিদর্শন করেন এবং সেখানে ডাক্তারদের সাথে আলোচনা করেন।

এএফসি হেলথ ফরটিস হার্ট ইন্সটিটিউট এর কন্সালটেন্ট ক্যার্ডিওলজিস্ট সাঈদ আহম্মেদ জানান, এএফসি এর পুরো ভবনটি  রোগীদের জন্য সার্বক্ষনিক সেবায় নিয়োজিত থাকবেন।
কুমিল্লা সদর আসনের সংসদ সদস্য ও মহানগর আওয়ামীলীগের সভাপতি আ.ক.ম বাহাউদ্দিন বাহার কুমিল্লাবাসীকে ঘরে থাকার জন্য আহ্বান জানান। দোকান মালিক সমিতির সাথে বৈঠক করে ঔষধ দোকান ছাড়া, মানুষের দৈনন্দিন নিত্যদ্রব্য, কাঁচা বাজার, মুদি দোকান সহ সকল দোকান সন্ধ্যা ৬টা পরে বন্ধ রাখার সিদ্ধান্ত গ্রহণ করেন।

কুমিল্লা সদর আসনের আওয়ামীলীগের সকল নেতাকর্মী ও জনপ্রতিনিধিদেরকে নির্দেশ দেন কুমিল্লা জনগণের পাশে থেকে সকল প্রকার সহযোগীতা করার আহ্বান জানান। এর সাথে কুমিল্লা সিটি কর্পোরেশনের মেয়র মনিরুল হক সাক্কুর সাথে আলোচনা হয় সিটি কর্পোরেশনের সকল প্রকার সেবা দেওয়ার জন্য।

আর পড়তে পারেন