রবিবার, ১২ই জুলাই, ২০২০ ইং

কিট সংকটে ২ দিন ধরে কুমেকে করোনা পরীক্ষা বন্ধ, কাজ শিখতে ৮০০ কিট নষ্ট

আজকের কুমিল্লা ডট কম :
জুন ৭, ২০২০
news-image

 

স্টাফ রিপোর্টার:

কিট সংকটের কারণে কুমিল্লা মেডিকেল কলেজে (কুমেক)  গত ২  দিন ধরে করোনা ভাইরাসের  নমুনা পরীক্ষা বন্ধ রয়েছে।   যার কারণে স্যাম্পল সংগ্রহ করাও স্থগিত রেখেছে জেলা স্বাস্থ্য বিভাগ।

আগে নমুনা দিয়ে রাখা এক হাজারের উপর মানুষের পরীক্ষা অপেক্ষামান । ফলে করোনার উপসর্গ নিয়ে চরম ভোগান্তিতে রয়েছে হাজার হাজার মানুষ।

কুমেক অধ্যক্ষ ডা.মোস্তফা কামাল আজাদ বলেছেন,হ্যাঁ, কিট সংকটের কারণে আমরা শনিবার পরীক্ষা করাতে পারিনি। এক হাজার স্যাম্পল পরীক্ষার অপেক্ষায় রয়েছে। আশা করি রোববার কিট কুমিল্লায়  এসে পৌছলে আমরা রোববার থেকে কাজ শুরু করতে পারব । ইতিমধ্যে কুমেকের সংশ্লিষ্টরা কাজ শিখতে গিয়ে নষ্ট করে ফেলছে ৮০০ কিট। যার প্রতিটির মূল্য রয়েছে ৪ হাজার টাকা করে।

কুমিল্লা মেডিকেল কলেজ সূত্রে জানা যায়, গত ২৯ এপ্রিল থেকে কুমেকে আনুষ্ঠানিকভাবে করোনার নমুনা পরীক্ষা শুরু হয়। প্রথমে এক শিফট চালু হলেও পরবর্তীতে দুই শিফটে কাজ করা হয়। কখনো কখনো কাজের চাপ বেড়ে গেলে তিন শিফটেও নমুনা পরীক্ষা করা হয়। প্রতিদিন প্রতি শিফটে ৯৪টি পরীক্ষা করা সম্ভব হয়।  কুমেকে করোনা পরীক্ষা  চালুর পর এ পর্যন্ত ৬ হাজার ৯০০ টি কিট সরকার থেকে কুমেক কর্তৃপক্ষকে দেওয়া হয়।

জানা যায়,  ৫ জুন শুক্রবার অর্ধবেলা আর শনিবার পুরো দিন কুমেকে করোনার পরীক্ষা সম্পূর্ন বন্ধ ছিল কিট সংকটের কারণে। এতে জমে আছে এক হাজারের বেশী স্যাম্পল। এই স্যাম্পল গুলো পরীক্ষা না হওয়াতে এই বিশাল সংখ্যক জনগোষ্ঠী জানতে পারছে না তারা করোনা পজেটিভ কি না। ফলে তারাও এক চরম অনিশ্চয়তার মধ্যে দিন কাটাচ্ছে।

অপর দিকে, কুমেকের এই করোনা পরীক্ষা বিভাগে রয়েছে লোক বলের চরম সংকট। বর্তমানে বিভিন্ন পয়েন্ট থেকে ৬ জন করে ১২ জন লোক দিয়ে কাজ চালাতে হচেছ কুমেক কর্তৃপক্ষকে। বর্তমানে করোনা পরীক্ষার যে পরিমান চাপ রয়েছে সেই চাপ সামলাতে কমপক্ষে বর্তমানের দ্বিগুন লোক প্রয়োজন বলে কুমেক কর্তৃপক্ষ জানান।

কুমিল্লা মেডিকেল কলেজের অধ্যক্ষ ডা.মোস্তফা কামাল আজাদ  জনবল সংকটের বিষয়ে বলেন, করোনা ইউনিটে আমরা প্রথম ৬ জন লোক নিয়োগ দিয়েছিলাম। পরে অন্য বিভাগ থেকে আরো ৬ লোক নিয়ে এসেছি। এরপরও বলব,প্রয়োজনের অর্ধেক লোক রয়েছে এই বিভাগে। শনিবার ডিজি অফিসের সাথে কথা হয়েছে। আমাদের জন্য আরো কিছু লোক শিগগিরই নিয়োগ দিবে। তখন আশা করি সমস্যা থাকবে না।

 

আর পড়তে পারেন