বুধবার, ১৩ই নভেম্বর, ২০১৯ ইং

অপহরণের পর শ্বাসরোধে হত্যা, পেট কেটে বাচ্চা চুরি

আজকের কুমিল্লা ডট কম :
মে ১৭, ২০১৯
news-image

ডেস্ক রিপোর্ট :

মার্কিন যুক্তরাষ্ট্রে ৯ মাসের অন্তঃসত্ত্বা এক তরুণীকে অপহরণের পর শ্বাসরোধ করে হত্যা করা হয়েছে। হত্যা করার পর তাঁর পেট কেটে বের করে নেওয়া হয় শিশুকে। স্থানীয় সময় গত বুধবার বিকেলে শিকাগো শহরে এই মর্মান্তিক ঘটনা ঘটে।

শিকাগো শহরের পুলিশ বিভাগের পক্ষ থেকে জানানো হয়, নিহত তরুণীর নাম মারলেন ওকোয়া। তাঁকে প্রথমে হত্যা করা হয়। হত্যা করে তাঁর পেট থেকে শিশুটিকে বের করে নিয়ে যাওয়া হয়।

স্থানীয় সংবাদমাধ্যমের খবরে জানা যায়, শেষবার যখন মারলেন ওকোয়া-লোপেজকে দেখা গিয়েছিল, তখন তিনি ৯ মাসের অন্তঃসত্ত্বা। শিকাগোর অল্টারনেটিভ হাই স্কুল থেকে বিকেল ৩ টার দিকে নিজের কালো হন্ডা সিভিকে নিজেই ড্রাইভ করে বেরিয়েছিলেন ১৯ বছরের এই কন্যা। দিনের শেষে পরিবারের কাছে ফোন আসে যে তিনি ডে-কেয়ার থেকে ৩ বছরের ছেলেকে নিতে যাননি।

পরে তাঁর ফোন থেকে স্বামীর ফোনে একটি মেসেজ গিয়েছিল। তাতে লেখা ছিল, তিনি খুব ক্লান্ত। তাই আর গাড়ি চালাতে পারছেন না। এরপর থেকে তাঁকে আর খোঁজে পাওয়া যায়নি। পরে বুধবার তাঁর মরদেহ খোঁজে পাওয়া যায়। ওকোয়া-লোপেজদের বাড়ির সামনেই একটি আবর্জনার বিন থেকে উদ্ধার করা হয় মরদেহ। পুলিশের বক্তব্য মৃতদেহের গর্ভ থেকে কেটে বের করা হয়েছে শিশুকে।

মেডিক্যাল পরীক্ষার পর দেখা যায় মরদেহটি মারলেনেরই। তাঁকে শ্বাসরোধ করে হত্যা করা হয়েছে বলে জানানো হয়েছে ময়নাতদন্তের প্রতিবেদনে।

এই ঘটনায় ৪৬ বছরের ক্ল্যারিস্কা ফিগুয়েরো এবং তার কন্যা ২৪ বছরের ডেসিরির বিরুদ্ধে খুনের অভিযোগ এনেছে পুলিশ।

পুলিশ জানিয়েছে, বাচ্চাদের জিনিসপত্র ক্ল্যারিস্কার থেকে কিনতেন মারলেন। সেই থেকেই দু’জনের মধ্যে পরিচিতি। যে দিন মারলেন নিখোঁজ হয়েছিলেন, সে দিন তাঁদের দু’জনের ফেসবুকে কথা হয়েছিল। কিছু জিনিসপত্র নিতে ক্ল্যারিস্কার বাড়িতে গিয়েছিলেন মারলেন। সেখানেই তাঁকে খুন করে তাঁর গর্ভ থেকে শিশুকে কেটে বের করে নেওয়া হয়। শিশুটিকে হাসপাতালে ভর্তি করা হয়েছে। তার অবস্থা গুরুতর।

আর পড়তে পারেন